রাত ২:০৭, রবিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ সাহিত্য / এক রাজ্যে দুই রাজা
এক রাজ্যে দুই রাজা
আগস্ট ১৯, ২০১৭

 মোহাম্মদ অংকন:এক ছিল ঘন বন। সেই বনে এক বাঘ ও এক সিংহ বাস করত। তারা দু’জনেই নিজেদেরকে বনের রাজা মনে করত। এ নিয়ে মাঝে মাঝে বেশ ঝগড়াও হত। বাঘ বলত, আমিই বনের রাজা। সিংহ বলত, আমিই বনের রাজা। একটি বন অথচ দু’জনই রাজা হওয়ার দাবীদার। কেউ কাউকে সহ্য করতে পারত না। তবে তারা দু’জনই এই দ্বন্দ্বের সমাধান আশা করত। কিন্তু কেউই রাজা ছাড়া অন্য কিছু হওয়ার কথা ভাবত না। এ নিয়ে নিকটবর্তী বনের রাজা হাতিও বেশ চিন্তিত। তার কাছে বিচার চাইতে এলেও কোনো সমাধান সে করতে পারত না।

একদা এই বনে এক দার্শনিক বেড়াতে এল। তার নাম ছিল শেয়াল। সে বন ঘুরে ফিরে দেখতেই সিংহ ও বাঘের তুমুল ঝগড়া লক্ষ্য করল। এমন অবস্থায় শেয়াল বাঘ ও সিংহের কাছে গেল এবং তাদের এই ঝগড়া করার কারণ জানতে চাইল। তারা ঝটপট বলে দিল। আমিই রাজা, আমিই রাজা বলে দু’জনই চিৎকার শুরু করে দিল। শেয়াল তখন বুঝতে পারল যে সমস্যাটি বেশ জটিল। তাদের শান্ত করিয়ে শেয়াল বলল, আমি তোমাদের এই সমস্যার সমাধান করে দিব। বাঘ ও সিংহ দু’জনই জিজ্ঞেস করল, কিভাবে? শেয়াল তখন বলল, তোমাদের বনের যাবতীয় তথ্য আমাকে দিতে হবে।

 তাহলে আমি তোমাদের এই বিষয়টির সমাধান অতি সত্ত্বর করতে পারব।
বাঘ ও সিংহ বনের সকল তথ্য সংগ্রহের জন্য কাজে লেগে পড়ল। বনের পরিমাপ, গাছপালা ও পশুপাখির সংখ্যা গণনা করল। তাদের জরিপে পাওয়া গেল, এই বনের দৈর্ঘ্য অনেক বড়, অনেক গাছপালা আছে। কিন্তু কোন প্রকার পশুপাখি নাই। এ নিয়ে তারা মোটেও চিন্তিত নয়। কিন্তু শেয়ালকে তথ্যগুলো দেওয়ার পর, ওদের চিন্তা ধরিয়ে দিল। শেয়াল বলল, শুধু রাজা দিয়ে কখনও একটি রাজ্য চলতে পারে না। প্রজা ও জন সাধারণেরও প্রয়োজন আছে। তোমাদের উচিৎ, বনে জনসংখ্যা বৃদ্ধি করা। এজন্য তোমাদের অন্য বন থেকে সদস্য সংগ্রহ করতে হবে।

বেশ কিছু দিন পর দার্শনিক শেয়াল আবারও বনে ঘুরতে এল। সিংহ ও বাঘ বিপুল জনগণ নিয়ে শেয়ালের নিকট হাজির হল। তারা দু’জনই শেয়ালকে বলল, তোমার কথা মত এই বনে অনেক পশুপাখি নিয়ে এসেছি। এখন বলে দাও, কে হবে এই বনের রাজা? শেয়াল আশ্বাস দিয়ে বলল, ঠিক আছে। কে হবে রাজা, এর জন্য সাধারণ জনগণের কাছ হতে ভোট গ্রহণ করা হবে। যে বেশি ভোট পাবে, সে হবে এই বনের রাজা। বাঘ ও সিংহ বিষয়টি বুঝতে পারল এবং শেয়ালের কথা মত ভোটের আয়োজন করল। সারাদিন ব্যাপী ভোটগ্রহণ হল। অতঃপর শেয়াল ভোট গণনা করে দেখল যে দু’জন সমান ভোট পেয়েছে। দু’জনের মধ্যে একজনকে রাজা বানানো সম্ভব হল না।

শেয়াল বিকল্প ভাবনা ভাবতে শুরু করল। হঠাৎ তার মাথায় বুদ্ধি এল, বনকে দুটি এলাকায় বিভক্ত করা হবে। একাংশ বাঘ ও একাংশ সিংহকে দেওয়া হবে। দু’জন দু অংশের রাজা হবে। অন্যান্য পশুপাখিদেরও বিভক্ত করে দেওয়া হবে। শেয়ালের কথা মত দু’জনই রাজি হল। দু’জন দু অংশের রাজা হয়ে গেল। বাঘের রাজ্যে যেমন সুখ, সিংহের রাজ্যেও তেমনি সুখ।

বিভক্ত দুই রাজা বাঘ ও সিংহের সুখের খবরটা পাশের বনের রাজা হাতির কানে পৌঁছাল। হাতি একটু দূষ্টু চরিত্রের ছিল। তাই সে ভাবল, ওরা যেহেতু এখন বিভক্ত হয়ে গেছে, তাই দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে ওদের রাজ্য দখল করা যায় কিনা। যা ভাবনা, তাই কাজ। রাজা হাতি পর্যায়ক্রমে বাঘ ও সিংহের রাজ্যে আক্রমণ করল। তারা নতুন রাজা হওয়ায় তেমন কিছু বুঝে না উঠতেই হেরে গেল। বন থেকে বিতাড়িত হল। হাতি মনের সুখে তার রাজ্যের সীমানা বাড়িয়ে নিয়ে রাজ্য পরিচালনা শুরু করে দিল।
একদা নদীর ঘাটে সিংহ ও বাঘের দেখা হল। তারা দু’জনই তাদের করুণ পরিণতির কথা আলোচনা করল। নিরুপায় হয়ে তারা ভাবল, নিজেদের ভাগাভাগি করাটা যে তাদের ভুল হয়ে গেছে। এমন সময় আবার ঐ দার্শনিক শেয়ালের সাথে তাদের দেখা হল।

 তার কাছে সকল ঘটনা খুলে বলল। শেয়াল বলল, দেখ, তোমরা দু’জনই শক্তিশালী। তবে কৌশলগত সিংহের কারণে হেরে গেছ। আজ যদি তোমরা একত্র থাকতে, তাহলে কি কেউ তোমাদের বন থেকে বিড়াতিত করতে পারত? সকলেই জানে, সিংহ ও বাঘ ভয়াবহ প্রাণী। এক বনে বাস করে নিজেদের মধ্যে গন্ডগল করায় আজ বিড়ালের চেয়েও ভীতু হয়ে গেছ। তারা নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে আগের মত এক সাথে থাকার সিদ্ধান্ত নিল।

 শেয়াল তখন দু’জনকে এক হয়ে হাতির বিরুদ্ধে যুদ্ধে করত বলল। দু’জন মিলে যুদ্ধ করবে, কথাটি শোনা মাত্রই দূষ্টু রাজা হাতি রাজ্য ছেড়ে পালাল। অতঃপর বাঘ ও সিংহ আগের জীবনে ফিরে গেল এবং শপথ নিল আর রাজা হওয়া নিয়ে কভু ঝগড়া করব না। তারা সমস্বরে বলে উঠল, আমরা দু’জনই রাজা। আমরা এক রাজ্যে দুই রাজা।



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top