বিকাল ৫:১২, শনিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
/ ঢাকা / আশুলিয়ায় আত্মসমর্পণ করা চার জঙ্গির বিরুদ্ধে র‌্যাবের দুটি মামলা
আশুলিয়ায় আত্মসমর্পণ করা চার জঙ্গির বিরুদ্ধে র‌্যাবের দুটি মামলা
জুলাই ১৭, ২০১৭

আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি: আশুলিয়ার নয়ারহাট এলাকায় জঙ্গি আস্তানায় অভিযান  থেকে আটক চার জঙ্গির বিরুদ্ধে র‌্যাব বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় দুটি মামলা দায়ের করেছে। সোমবার দুপুরে ২টা ৩০ মিনিটে র‌্যাব ৪ এর কর্মকর্তা ডিএডি শরিফুল ইসলাম খান বাদী হয়ে চার জঙ্গির বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী  বিরোধী আইনে দবি: (৪১নং,তাং-১৭/০৭/১৭ইং) এবং অস্ত্র ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে (৪২নং,তাং-১৭/০৭/১৭ইং) এই দুইটি মামলা দায়ের করে। এদিকে তাদের বিরুদ্ধে পূর্বে সাভার মডেল থানায় (মামলা নং ৫১,তাং২৮.০৪.১৭ইং)এবছরে এপ্রিল মাসে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে একটি মামলায় তাদের  গ্রেফতার দোখিয়ে আদালতে  প্রেরণ করা হয়। তবে এই দুই মামলা তাদের আগামীকাল আবারও আদালতে উঠানো হবে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তারা।

এজাহারে জঙ্গিদের  গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।  গ্রেফতারকৃতরা হলো-  ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার সানকীভাঙ্গা গ্রামের আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে  মোজাম্মেল হক মাসুদ (১৮), চট্টগ্রাম জেলার রাউজান থানার কদলপুর মেয়াজি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে ইরফানুল ইসলাম ওরফে সুফিয়ান খান, গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালি গ্রামের রেজাউল করিমের ছেলে রাশেদুন্নবী নবী রাশেদ ( ২০) ও  সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ  উপজেলার হুগলি কৃষনগর গ্রামের আব্দুল হান্নান আলীর  ছেলে মো. আলমগীর হোসেন (১৮)। র‌্যাব-৪ এর এ,এসপি কামরুল ইসলাম জানান,আটককৃত চার জঙ্গির কাছ  থেকে দু’টি বিদেশী পিস্তল, ছয়টি গুলির খোসা,চারটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়। অভিযান চরাকালে জঙ্গিরা দু’টি হাত বোমার বিষ্ফোরণ ঘটায়।পরে র‌্যাব ঘটনাস্থল  থেকে আরও তিনটি  বোমা উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে বিষ্ফোরণ ঘটায়। এদিকে আটক বাড়ির মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ  শেষে স্ত্রীর জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, শনিবার রাত ১ টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আশুলিয়ার নয়ায়হাট এলাকার একটি গ্রামে অভিযান চালায় র‌্যাব-৪। ১১ ঘন্টা অভিযান চলার পর র‌্যাব জঙ্গিদের আত্মসমর্পন করার জন্য অনুরোধ জানায়। পরে  রোববার দুপুর ১২ টার দিকে একে একে ৪  জঙ্গি হাত উচু করে আত্মসমর্পণ করে। পরে তাদের আটক করে র‌্যাব হেফাজতে  নেওয়া হয়।
 

এই বিভাগের আরো খবর



লাইক দিয়ে সঙ্গে থাকুন :




Go Back Go Top