বগুড়া শনিবার | ২১ ভাদ্র ১৪২২ | ২০ জিলকদ ১৪৩৬ হিজরি | ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৪২৯৪১
সার্চ
চিনি আমদানিতে নতুনভাবে শুল্ক আরোপ : স্বস্তি ফিরেছে এ শিল্পে
সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, পঞ্চগড় :
সরকারের একটিমাত্র সিদ্ধান্তে আশার আলো দেখছে দেশের চিনিকলগুলো। ব্যক্তি মালিকানাধীন চিনি পরিশোধন কারখানাগুলোর অসম প্রতিযোগিতায় টিকতে না পেরে প্রায় রুগ্ন শিল্পে পরিণত হচ্ছিল দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ১৫টি চিনিকল। চিনি শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট ও বিভিন্ন গণমাধ্যম বিদেশ থেকে আমদানিকৃত পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনি আমদানির উপর উচ্চ হারে শুল্ক আরোপের বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার... বিস্তারিত
নির্বাচিত সংবাদ
কাজীপুরে আগ্নেয়াস্ত্রসহ শুভগাছা ইউপি চেয়ারম্যান আটক
সিরাজগঞ্জের কাজীপুর থানা পুলিশ আগ্নেয়াস্ত্র সহ শুভগাছা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আলমামুনকে (রিপন) গ্রেফতার করেছে। এসময় তার বাড়ির আলমারির ভিতর তল্লাশি চালিয়ে একটি কাটা বন্দুক ১৫ রাউন্ড তাজা গুলি ও বিপুল সংখক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করেছে। কাজীপুর থানার তদন্ত কর্মকর্তা ওহিজ্জামান জানান, গত ৩ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উপজেলার শুভগাছা ইউনিয়নের ওয়ারেন্টভুক্ত কয়েকজন আসামিকে ধরতে গিয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানার রুপসা এলাকায় সঙ্গীয় ফোর্সসহ অবস্থান করছিল। এসময় অস্ত্র নিয়ে অবস্থান করছে মর্মে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জ সদর থানার মেছড়া ইউনিয়নের নিয়োগীবাড়ি এলাকায় উক্ত শুভগাছা ইউপি চেয়ারম্যান রিপন তালুকদারের বাসভবন ঘেরাও এবং তল্লাশিরর একপর্যায়ে তার বাড়ির শয়নঘরের আলমিরার ভিতর অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বিষয়ে কাজীপুর থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।
শাহজালাল মাজারে বার্ষিক উরস শুরু
হযরত শাহজালাল (র.) মাজারে দুই দিনব্যাপী ৬৯৬তম বার্ষিক ওরস শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ফজরের নামাজের পর পর ওরস শুরু হয়। এতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভক্ত অনুরাগীরা জড়ো হয়েছেন। এদিকে মাজারে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে গিলাব দেওয়া হয়। বেলা ১১টায় শেখ হাসিনার পক্ষে মাজারের খাদেমের হাতে গিলাব তুলে দেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদে। এ সময় আওয়ামী লীগসহ দলের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ওরসকে কেন্দ্র করে মাজারের চারদিকে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে সিলেট পুলিশ প্রশাসন। যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ। আজ শনিবার বাদ ফজর আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে ওরস সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে।
ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ নানা সমস্যায় জর্জরিত
ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ একটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ যেখানে ১০টি বিষয়ে অনার্স পড়ানো হয়। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে এই কলেজ। যার ফলে গত কয়েক বছর যাবৎ পরীক্ষার ফলাফল ভালো করতে পারছে না। ছাত্র-ছাত্রী এবং অভিভাবকেরা এ জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সরকারি কলেজের বিভিন্ন বিভাগের ছাত্র-ছাত্রী আরিফ, জুম্মন, শাহরিয়ার, নিলয়, রাজু, শাবলুর, শামিমা, রাফা এবং আরও অনেকে বলেন, কলেজে ঠিকমতো ক্লাস হয় না, শিক্ষকের অভাব, যারা আছেন তারাও ঠিকমতো ক্লাস নেন না। তারা প্রাইভেট নিয়ে ব্যস্ত। এছাড়া কলেজে ক্লাস রুমের সংকট রয়েছে, ছেলেদের কোনো কমনরুম নেই, ইনডোর গেম খেলার রুম নেই, ড্রামা, ডিবেট করার রুম নেই, ক্যান্টিন নেই, অডিটোরিয়াম নেই। সারা কলেজের ছাত্রদের জন্য টয়লেট মাত্র একটা। টয়লেটের সংখ্যা কম হওয়ায় ছেলে-মেয়েরা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। খাবার পানির জন্য মাত্র একটা টিউবওয়েল। আরও একটা টিউবওয়েল ছিল যা অকেজো হয়ে পড়ে আছে। মসজিদের জন্য প্রতি ছাত্র-ছাত্রীর কাছে কালেজে ভর্তির সময় ৭৫০ জন ছাত্রে কাছ থেকে ১০০ টাকা নেওয়া হয়। আর পরের বছরে ৫০ টাকা করে নেয়। কিন্তু মসজিদের হাল-হকিকত খুব খারাপ। বহুদিন রঙ করা হয়নি। মসজিদের টয়লেট মাত্র দুটি। সে দুটিরও দেয়াল ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। ছেলে-মেয়েদের অভিভাবক আব্দুল লতিফ, সাদেকুল ইসলাম এবং আব্দুল মালেক বলেন, আমাদের ছেলে-মেয়েদের আমরা উচ্চ শিক্ষার জন্য কলেজে পাঠিয়েছি। কিন্তু কলেজে ঠিকমতো ক্লাস না হলে এবং শিক্ষকেরা প্রাইভেট নিয়ে ব্যাস্ত থাকলে আমাদের ছেলে-মেয়েরা কলেজে কি শিখবে এবং কিভাবে ভালো রেজাল্ট করবে। এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম কিবরিয়া মন্ডল বলেন, ক্লাস নিয়মিত হয় না এটি ঠিক না। আর প্রাইভেট বাণিজ্যের ব্যাপারে তিনি বলেন, কোনো স্যার প্রাইভেট বাণিজ্য করে তা সুনর্ির্িদষ্টভাবে অভিযোগ করতে হবে তাহলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি স্বীকার করেন, রুম সংকট ও শিক্ষক সংকট আছে। তিনি বলেন, এছাড়া বিদ্যমান অন্যান্য সমস্যা নিরসনে আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। কিন্তু বাজেট পাইনি।
চিনি আমদানিতে নতুনভাবে শুল্ক আরোপ : স্বস্তি ফিরেছে এ শিল্পে
সরকারের একটিমাত্র সিদ্ধান্তে আশার আলো দেখছে দেশের চিনিকলগুলো। ব্যক্তি মালিকানাধীন চিনি পরিশোধন কারখানাগুলোর অসম প্রতিযোগিতায় টিকতে না পেরে প্রায় রুগ্ন শিল্পে পরিণত হচ্ছিল দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ১৫টি চিনিকল। চিনি শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট ও বিভিন্ন গণমাধ্যম বিদেশ থেকে আমদানিকৃত পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনি আমদানির উপর উচ্চ হারে শুল্ক আরোপের বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার হওয়ার পর এবার টনক নড়েছে সরকারের। দেশের চিনিকলগুলোকে বাঁচাতে দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে এবার উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড-এনবিআর। বিদেশ থেকে চিনি আমদানি নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে নতুন করে শতকরা ২০ ভাগ নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। সেই সাথে চিনি আমদানির ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ট্যারিফ মূল্য নির্ধারণ করায় নতুন করে আশার আলো দেখছে দেশের চিনি শিল্প। এই শুল্ক বহাল ও ভবিষ্যতে অবস্থা অনুযায়ী আরও শুল্ক আরোপসহ চিনিকলগুলোতে সারা বছর ধরে চিনি উৎপাদনে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করলে একদিন খাদ্যের মতো চিনিতেও দেশ স্বাবলম্বী হবে এমনই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন চিনি শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্টরা। সূত্র মতে, বর্তমানে দেশে বাৎসরিক চিনির চাহিদা প্রায় ১৪ লাখ মেট্রিক টন। এর মধ্যে মাত্র ৮ ভাগ চিনি উৎপাদন করে দেশের ১৫টি রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকল। নিজেদের চাহিদা মেটাতে বাকি ৯২ ভাগই বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। দেশের ৫টি ব্যক্তি মালিকানাধীন পরিশোধন কারখানা বিদেশ থেকে পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনি এনে তা পরিশোধন করে বাজারজাত করে এই চাহিদা পূরণ করছে। দেশের চিনিকলগুলোকে বন্ধ করে দেয়ার উদ্দেশেই তারা বড় প্লান্ট স্থাপন করে দেশের উৎপাদিত চিনি বিক্রি না হতে উৎসাহিত করছে। এ জন্য তারা সরকার নির্ধারিত চিনির দরের চেয়ে আরও দর কমিয়ে চিনিকলগুলোর সাথে অসম প্রতিযোগিতায় নেমেছে। এতেই বাদ সেধেছে দেশের চিনি শিল্প। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী দেশের ১৫টি চিনিকলে উৎপাদিত গত তিন বছরের প্রায় দেড় লাখ টন চিনি এখনও অবিক্রীত অবস্থায় নষ্ট হতে বসেছে। যার বাজার মূল্য প্রায় সাড়ে ৫শ\' কোটি টাকা। এই বিশাল অর্থের চিনি অবিক্রীত থাকায় চিনিকল কর্তৃপক্ষ সময়মত শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন দিতে পারছে না। প্রতিটি চিনিকলেই বেতন বকেয়া রয়েছে এক থেকে চার মাস পর্যন্ত। পঞ্চগড় চিনিকল কর্তৃপক্ষ গত ঈদের আগে সরকার নির্ধারিত দরের চেয়ে শতকরা ১০ ভাগ কম দামে বাজারে চিনি বিক্রি করে সেই টাকা রিবেট দিয়ে শ্রমিক-কর্মচারীদের দুই মাসের বেতন দিয়েছে। অর্থাৎ যে শ্রমিক মাসে ১০ হাজার টাকা বেতন পান, রিবেট দিয়ে বেতন নেয়ায় তিনি এক হাজার টাকা কম পাচ্ছেন। আবার চাকরি থেকে অবসরে গিয়ে এসকল শ্রমিক-কর্মচারী পড়ছেন আরেক বেকায়দায়। নগদ টাকা না পাওয়ায় চিনিকল থেকে চিনি নিতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। চিনিকলে সরকার নির্ধারিত দরে চিনি নিয়ে বাজারে শতকরা ১০-১২ ভাগ কম দামে তারা এই চিনি বিক্রি করছেন। এতে করে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তারা। ব্যবসায়ীরা কম দামে এই চিনি পাওয়ায় চিনিকল থেকে সরকার নির্ধারিত দরে চিনি নিতে অনিহা প্রকাশ করেন। আর আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়ার পরও স্বাধীনতার পর থেকে দেশের চিনিকলগুলো লোকসান গুনতে গুনতে তা তিন হাজার কোটি টাকাতে পেঁৗছেছে। এভাবে চলতে থাকলে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে এই চিনিকলগুলো বন্ধ করে দেয়া ছাড়া সরকারের আর কোন উপায় থাকবে না। দেশের চিনিকলগুলোকে সচল রেখে চিনি শিল্পকে বাঁচাতে দীর্ঘদিন থেকে সরব রয়েছে চিনিকল সংশ্লিষ্টসহ আখচাষিরা। তারা এই শিল্প বাঁচাতে আমদানি করা পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনিতে অধিক হারে শুল্ক আরোপের দাবি জানায়। এ নিয়ে দেশের গণমাধ্যমে কমবেশি অনেক লেখালেখিও হয়। তারপরও সরকারের টনক নড়েনি। চলতি বছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আমদানিকৃত চিনিতে শুল্ক আরোপের ঘোষণা দিলেও পরের দিন তা বাতিল করে দেন। এ নিয়ে আলোচনার ঝড় বয়ে গেলেও সরকার ছিল একেবারে নিশ্চুপ। অবশেষে দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে যুগান্তকারী সিন্ধান্ত নেয় এনবিআর। সমপ্রতি এনবিআর এ বিষয়ে দু\'টি আলাদা আদেশ জারি করে। এর মধ্যে বিদেশ থেকে আমদানি করা পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনিতে শতকরা ২০ ভাগ নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপ ও আমদানি করা চিনির সর্বনিম্ন ট্যারিফ নির্ধারণ। এসআরও অনুযায়ী আমদানিকৃত প্রতি মেট্রিক টন পরিশোধিত চিনির দাম ৪শ ও অপরিশোধিত চিনির দাম ৩২০ মার্কিন ডলারের নিচে হবে না। নতুন শুল্ক আরোপের ফলে প্রতি মেট্রিক টন পরিশোধিত চিনি আমদানিতে শুল্ক হবে ১০ হাজার টাকা ও অপরিশোধিত চিনিতে ৭ হাজার টাকা। এতে করে আমদানি করা চিনির মূল্যবৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে দেশে উৎপাদিত চিনি বিক্রিতে আর কোন সমস্যা হবে না। বাংলাদেশে চিনি ছাড়া সব জিনিসের দাম বাড়ছে। এ অবস্থায় দেশী চিনির দাম কিছুটা বাড়ালেও তা ক্রয় ক্ষমতার মধ্যেই থাকবে। একটি সূত্র জানায়, দেশের চিনিকলগুলো আখ সরবরাহ সাপেক্ষে প্রতি বছরের মাড়াই মৌসুমে ৩/৪ মাস চলে। বাকি সময়টা বন্ধ থাকে। মৌসুমী শ্রমিকদের বেতন না দিলেও মিল বন্ধ থাকার পরও নিয়মিত শ্রমিক ও কর্মচারীদের বেতন দিতে কর্পোরেশনকে মোটা অংকের টাকা গুনতে হয়। আর মৌসুমী শ্রমিকরা বছরের ৮/৯ মাস অন্য কাজ বা জমিতে কাজ করে। অথচ সরকার উদ্যোগ নিলে এসব চিনিকল সারা বছর চালানো সম্ভব। দেশের বিভিন্ন চিনিকল এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে সুগার বিট চাষ করা হচ্ছে। সুগার বিট থেকে আশানুরূপ ফলনও পাওয়া গেছে। ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে কৃষকদের সুগার বিট উৎপাদনে উৎসাহিত করলে ইক্ষু শেষ হবার পর সুগার বিট দিয়ে আরও ৩/৪ মাস চিনিকলগুলোতে চিনি উৎপাদন করা সম্ভব। আর চিনিকলগুলোতে নতুনভাবে পরিশোধন প্লান্ট স্থাপন করা গেলে বিদেশ থেকে সরকারি উদ্যোগে অপরিশোধিত চিনি এনে এসব চিনিকলে পরিশোধন করা হলে সারা বছরই এসব চিনিকল চালু রাখা সম্ভব। এতে করে যেমন দেশের চাহিদার সম্পূর্ণ চিনি দেশেই উৎপাদন করা সম্ভব হবে তেমনি চিনিকলের সকল শ্রমিক-কর্মচারী নিয়মিত কাজের নিশ্চয়তা পাবে। পঞ্চগড় চিনিকল সূত্র জানায়, গত মৌসুমে পঞ্চগড় চিনিকলে ৩ হাজার ৫১৮ মেট্রিক টন চিনি উৎপাদিত হয়। সেই সাথে আগের দুই মৌসুমের ৬ হাজার মেট্রিক টন চিনি অবিক্রীত ছিল। বর্তমানে এই চিনিকলে এখনও ৮ হাজার ২০৩ দশমিক ১৫ মেট্রিক টন চিনি অবিক্রীত রয়েছে। যার প্রতি মেট্রিক টন ৩৭ হাজার টাকা হিসেবে মূল্য ৩০ কোটি ৩৫ লাখ ১১ হাজার টাকা। আখের মূল্যবৃদ্ধি এবং চিনির মূল্য কমিয়ে দেয়ায় প্রতি বছর এই চিনিকলটি লোকসান গুনেই চলছে। তারপরও চিনি বিক্রি না হওয়ায় নিয়মিত বেতন না পেয়ে চরম সংকটে রয়েছে এখানে কর্মরত শ্রমিক-কর্মচারীরা। এ ব্যাপারে পঞ্চগড় চিনিকল শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আনোয়ারুল হক বলেন, দেশের চিনিকলগুলোর সাথে প্রতিযোগিতায় নেমেছে বেসরকারি চিনি পরিশোধনকারী কারখানার মালিকরা। বিক্রি না হওয়ায় আমাদের চিনির দাম কমালে তারাও দাম কমায়। আমাদের উৎপাদিত চিনি বাকিতে বিক্রি করার কোন সুযোগ নেই। অথচ তারা নিজস্ব পরিবহনে করে ব্যবসায়ীদের গুদামে বাকিতে চিনি পেঁৗছে দিচ্ছে। নতুন করে শুল্ক আরোপ করায় তাদের চিনির দাম অনেক বেড়ে যাবে। তিনি আরও বলেন, দেশের চিনির উল্লেখযোগ্য অংশ মিষ্টি তৈরির কাজে ব্যবহৃত হয়। আমাদের উৎপাদিত চিনির রঙ কিছুটা লালচে হওয়ায় তারা আমদানিকৃত পরিশোধন করা ধবধবে সাদা চিনি কিনে থাকে। আমাদের উৎপাদিত চিনি পরিশোধন করে সাদা করতে পারলে একটু দাম বেশি হলেও ক্রেতারা এই চিনি কিনবে। কারণ আমদানি করা চিনির চেয়ে আমাদের চিনি অনেক বেশি মিষ্টি এবং স্বাস্থ্যকর। এ জন্য প্রয়োজন সরকারি উদ্যোগের। পঞ্চগড় চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম আব্দুর রশীদ বলেন, আমদানি করা পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনির উপর শুল্ক আরোপ করায় দেশের চিনি শিল্পে সু-বাতাস বইবে। চিনি বিক্রি না হওয়ায় আমরা শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন দিতে পারছিলাম না। আশা করি এখন আর সে সমস্যা থাকবে না। সামনেই মাড়াই মৌসুম। মৌসুমের আগে চিনি বিক্রি হয়ে গেলে চিনি মজুদ করতে আর কোন সমস্যা হবে না। শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়মিত বেতন দেয়া সম্ভব হবে।
'এটাই যেন শেষ হয়'
সাগরতীরে মাটির দিকে মুখ করে পড়ে থাকা যে শিশুর মৃতদেহের ছবি নাড়িয়ে দিয়েছে পুরো বিশ্বকে সিরীয় সেই শিশুর বাবা আব্দুলাহ কুর্দি বলেছেন, তার সন্তানের মৃত্যুর মধ্য দিয়েই যেন এই সংকটের সুরাহা হয়। বৃহস্পতিবার তুরস্কের বোদরামের নিকটবর্তী মুগলা শহরের একটি মর্গ থেকে বেরিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন আব্দুলাহ। সাগরে নৌকাডুবির পর ভেসে এখানকার সৈকতে এসেছিল তার তিন বছরের সন্তান আয়লানের মৃতদেহ। লাল টি-শার্ট আর নীল প্যান্ট পরা ওই শিশুর মৃতদেহের ছবি বিশ্বজুড়ে সংবাদ মাধ্যমে এসেছে; প্রশ্নের মুখে পড়েছে ইউরোপের শরণার্থী নীতি। মধ্যরাতে বোদরাম উপদ্বীপের আকিয়ারলার এলাকা থেকে ২৩ জন যাত্রী নিয়ে গ্রিসের কোস দ্বীপের উদ্দেশ্যে সাগরে যাত্রা করার পর দুটি নৌকাডুবির ওই ঘটনায় নিহত ১২ জনের মধ্যে আয়লানের সঙ্গে তার পাঁচ বছরের ভাই গালিপ ও মা রেহান (৩৫) রয়েছেন। স্ত্রী-সন্তানের মৃতদেহ নিজের শহর সিরিয়ার কোবানি নিতে চান জানিয়ে আব্দুলাহ বলেছেন, তার আর ইউরোপে যাওয়ার কোনো ইচ্ছা নেই। আমি শুধু শেষবারের মতো আমার সন্তানদের দেখতে চাই এবং চিরদিন তাদের সঙ্গে থাকতে চাই। তিনি বলেছেন, নিজ দেশে যুদ্ধ থেকে বাঁচতে আমরা যেখানে আশ্রয় নিয়েছিলাম সেখানে আমাদের যা ঘটল তা সারা বিশ্ব দেখুক-এটা আমরা চাই। আমরা বিশ্বের দৃষ্টি চাই, যাতে অন্যদের ক্ষেত্রেও এমনটা ঘটা তারা আটকাতে পারেন। এটাই যেন শেষ হয়। পুলিশকে দেওয়া আব্দুলাহর জবানবন্দির বরাত দিয়ে তুরস্কের হুরিয়েত পত্রিকা জানিয়েছে, পরিবারসহ তাকে গ্রিসে নিয়ে যাওয়ার জন্য দুইবার পাচারকারীদের টাকা দেন তিনি। কিন্তু সে সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়। তারপর তারা একটি নৌকায় যাত্রা করার সিদ্ধান্ত নেন এবং তাতে উঠে পড়েন। এক পর্যায়ে নৌকায় পানি উঠতে শুরু করলে লোকজন আতঙ্কে উঠে দাঁড়ানোর পর সেটি ডুবে যায়। আমি আমার স্ত্রীর হাত ধরে ছিলাম। ছেলেরা আমার হাত থেকে ছুটে যায়। আমরা কোনভাবে নৌকাটি ধরে রাখতে চেয়েছিলাম। গভীর অন্ধকারে সবাই চিৎকার-চেঁচামেচি করছিল। সিরিয়া থেকে পালিয়ে আসার পর শরণার্থী জীবনে কানাডায় অভিবাসনের চেষ্টা করেছিল আব্দুলাহর পরিবার। কানাডা প্রবাসী বোনের স্পন্সরে অভিবাসনের ওই আবেদন গত জুনে নাকচ করে দেয় কানাডা কর্তৃপক্ষ। আব্দুলাহর বোন তিমা কুর্দিকে উদ্ধৃত করে কানাডার ন্যাশনাল পোস্ট পত্রিকা জানিয়েছে, আমি তাদের স্পন্সর করার চেষ্টা করছিলাম। আমার বন্ধু ও প্রতিবেশীরা ব্যাংক ডিপোজিট দিয়ে আমাকে সহায়তা করেছিল। কিন্তু আমরা তাদের আনতে পারিনি এবং সে কারণে তারা ওই নৌকায় গিয়েছিল। তুরস্কে তাদের থাকার জন্যও আমি টাকা পাঠাচ্ছিলাম। কিন্তু সেখানে তারা সিরীয়দের সঙ্গে যে আচরণ করে তা ভয়াবহ। ২০১১ সালে সিরিয়ার যুদ্ধ হওয়ার পর থেকে দুই কোটির মত শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে তুরস্ক। তাদের জন্য ছয়শ কোটি ডলার ব্যয় করেছে, যেখানে বাইরে থেকে সহযোগিতা হিসেবে মাত্র ৪০ কোটি ডলার পেয়েছে তারা। শরণার্থীদের সংখ্যা সামথ্র্যের বাইরে চলে যাচ্ছে জানিয়ে তুরস্ক সতর্ক করেছিল যে, ইউরোপে ঢোকার লক্ষ্যে হাজার হাজার শরণার্থী বিপজ্জনকভাবে নৌকায় করে গ্রিসের উদ্দেশ্যে যাত্রা করছে। মুগলার নিরাপত্তা কর্মীরা জানিয়েছেন, আব্দুলাহ দুই শিশু ও তার স্ত্রীর মরদেহ বিমানে করে ইস্তানবুল হয়ে দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় শহর সানলিউরফায় পাঠানো হবে, সেখান থেকে সড়ক পড়ে সীমান্তবর্তী সিরীয় শহর কোবানিতে নেওয়া হবে। গেল বছর থেকে কোবানি ব্যাপক লড়াই চলছে। সামপ্রতিক মাসগুলোতে সেখানে ইসলামিক স্টেটের আগ্রাসন ঠেকাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কুর্দিশ আঞ্চলিক বাহিনীগুলো। যুদ্ধ কবলিত সিরিয়া থেকে পালিয়ে আসা হাজারো শরণার্থী এই গ্রীষ্মে গ্রিসের উদ্দেশ্যে তুরস্কের এজিয়েন ঊপকূল থেকে নৌকায় সাগর পাড়ি দিয়েছে। গত কয়েক দিনে তুরস্ক ও গিসের বিভিন্ন দ্বীপের মধ্যবর্তী সাগর থেকে কয়েকশ অভিবাসন প্রত্যাশীকে তাদের সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ টিমের সদস্যরা বাঁচিয়েছে বলে তুরস্কের সেনাবাহিনী জানিয়েছে। আব্দুলাহ ও তার পরিবারের সঙ্গে নৌকাডুবির ঘটনায় বেঁচে যাওয়া ওমের মহসিন নামের আরেক সিরীয় বলেন, রাত ২টার দিকে যাত্রা করার কিছুক্ষণ পর নৌকাটি ডুবে গেলে সাঁতরে তীরে আসেন তিনি। এখন নিখোঁজ ভাইকে খুঁজছেন। \'নৌকায় বড় জোর ১০ জনকে উঠানো যেত। কিন্তু তারা সেখানে ১৭ জনকে উঠিয়েছিল। আমি ও আমার ভাই প্রত্যেকে দুই হাজার ৫০ ইউরো করে দিয়েছিলাম,\' তাকে উদ্ধৃত করে বলেছে দোয়ান বার্তা সংস্থা। একটি ভিডিওচিত্রে সৈকতে বালুতে আরেকটি শিশুর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। ওই মৃতদেহটি আয়লানের ভাইয়ের হতে পারে ধারণা করা হচ্ছ্। সৈকতে আয়লানের মৃতদেহের ছবি তুলেছেন দোয়ান বার্তা সংস্থার আলোচিত্রী নিলুফার দেমির। তিনি সিএনএনকে বলেছেন, যখন দেখলাম শিশুটিকে বাঁচানোর আর কোনো উপায় নেই তখন ভাবলাম তার ছবি তোলা উচি, যাতে মর্মান্তিক এই ঘটনা দেখানো যায়। এই ছবি যে প্রভাব ফেলেছে তা সমস্যার নিরসনে সহায়তা করবে বলে আমি আশা করছি। জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ সালের শুরু থেকে এ পর্যন্ত সাগর পথে এক লাখ ৬০ হাজার শরণার্থী ও অভিবাসন প্রত্যাশী গ্রিসে পৌঁছেছে। গত জুলাইয়ে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ গ্রিসে ঢুকেছে, যাদের বেশিরভাগই সিরীয়, যেখানে ২০১৪ সাল জুড়ে গিয়েছিল সাড়ে ৪৩ হাজার।
আজ শুভ জন্মাষ্টমী
আজ শনিবার হিন্দু সমপ্রদায়ের আরাধ্য ভগবান শ্রী কৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী। হিন্দু পুরান মতে, ভাদ্র মাসের শুক্লপক্ষের অষ্টম তিথিতে ভগবান শ্রী কৃষ্ণ জন্ম গ্রহণ করেন। সনাতন ধর্মালম্বীদের বিশ্বাস পাশবিক শক্তি যখন ন্যায়নীতি, সত্য ও সুন্দরকে গ্রাস করতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সেই শক্তিকে দমন করে মানবজাতির কল্যাণ এবং ন্যায়নীতি প্রতিষ্ঠার জন্য মহাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটেছিল। তাদের আরো বিশ্বাস, দুষ্টের দমন করতে এভাবেই যুগে যুগে ভগবান মানুষের মাঝে নেমে আসেন এবং সত্য ও সুন্দরকে প্রতিষ্ঠা করেন। দেশের হিন্দু সমপ্রদায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে জন্মাষ্টমী পালন করবেন। এ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণীতে হিন্দু সমপ্রদায়ের প্রতি জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এছাড়াও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ আজ বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত বঙ্গভবনে হিন্দু সমপ্রদায়ের বিশিষ্ট নাগরিকদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সরকার শনিবার সরকারি ছুটি ঘোষণা করেছে। শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে কেন্দ্রীয়ভাবে দুদিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ কার হয়েছে । কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ সকাল ৯ টায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় শ্রী শ্রী গীতাযজ্ঞ এবং মন্দিরের পুকুরে পোনা অবমুক্তকরণ। এ ছাড়াও বিকেল ৪ টায় ঐতিহাসিক কেন্দ্রীয় জন্মাষ্টমী মিছিলে অংশগহন। ঐতিহাসিক জন্মাষ্টমী মিছিলের উদ্বোধন করবেন ঢাকা দক্ষিন ও উত্তরের মেয়র সাঈদ খোকন এবং আনিসুল হক। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। মেজর জেনারেল (অব) সি আর দত্ত এসময় উপস্থিত থাকবেন। মিছিলটি ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির হয়ে পলাশী বাজার-জগন্নাথ হল-কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার-দোয়েল চত্বর-হাইকোট-জাতীয় প্রেসক্লাব-পল্টন-শহীদ নূর হোসেন স্কয়ার- গোলাপ শাহ্ মাজার-গুলিস্থান মোড়-নবাবপুর রোড-রায় সাহেব বাজার-বাহাদুর শাহ্ পার্কে গিয়ে শেষ হবে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসাবে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা। আলোচনা সভার উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার পংকজ সরণ। এ দিকে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মদিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি কাজল দেবনাথ ও সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত কুমার দেব এবং মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি জে. এল. ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ সাহা মনি এবং ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি নির্মল কুমার চ্যটারর্জি ও সাধরণ সম্পাদক রমেন মন্ডল এক বিবৃতিতো জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল স্তরের মানুষকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনসহ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলে এ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হবে।
গরিব ও অসহায় মানুষের জন্য কাজ করছে লায়ন্স ক্লাব
বগুড়া- ৫ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাবিবর রহমান বলেছেন, মানবসেবায় লায়ন্স ক্লাবের কার্যক্রম প্রশংসনীয়। সেবার হাতকে সম্প্রসারণ করে গরীব ও অসহায় মানুষের জন্য কাজ করছে লায়ন্স ক্লাব। তিনি বলেন, সমাজের কল্যাণে সরকার কাজ করছে। তবে দ্রুত সমাজ ব্যবস্থার উন্নয়ন সাধনে বেসরকারি কার্যক্রমের বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে লায়ন্স ক্লাবের মানবিক কার্যক্রমগুলো অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। গতকাল শুক্রবার সকালে বগুড়ার ধুনট উপজেলার ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদে লায়ন্স ক্লাব আয়োজিত বন্যাদূর্গতদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন। অনুষ্ঠানে লায়ন্স ক্লাবের গভর্নর লায়ন স্বদেশ রঞ্জন সাহা বলেন, লায়ন্স ক্লাবের মাধ্যমে সমাজ ও মানুষের জন্য ভালো কাজ করা যায়। মানবিক কারণে লায়ন্স ক্লাব জনকল্যাণমূলক বিভিন্ন কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। অনুষ্ঠানে লায়ন্স ক্লাবের সাবেক গভর্নর ও দৈনিক করতোয়া\'র সম্পাদক লায়ন মোজাম্মেল হক লায়ন্স ক্লাবের সদস্যদের জন্য দোয়া কামনা করে তিনি বলেন, লায়ন্স ক্লাবের মাধ্যমে অগণিত মানুষ সেবা পেয়েছে। আপনারা দোয়া করবেন, যাতে অসহায় মানুষের জন্য লায়ন্স ক্লাবের কার্যক্রম আরো বেগবান হয়। ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতিকুল করিম আপেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, লায়ন্স ক্লাবের কেবিনেট সেক্রেটারী লায়ন ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল ওহাব, রিজিওনাল চেয়ারপারসন লায়ন সুলতান মাহমুদ চৌধুরী, লায়ন্স ক্লাব বগুড়ার লায়ন মঞ্জুরুল হক, রিলিফ কমিটির চেয়ারম্যান লায়ন সফিউল ইসলাম খোকন, লায়ন একরামুল কবির, লায়ন পারভেজ হোসেন উজ্জল, লায়ন মঞ্জুর কাদির, লায়ন নজরুল ইসলাম, লায়ন রীনা মোজাম্মেল, লায়ন শাহীনুর ফেরদৌস, লায়ন মাকছুমা বেগম, লায়ন চন্দ্রিকা কাদির, লায়ন ফাহিমা ইসলাম, লায়ন জিনিয়া নাসীরন। আলোচনা সভা শেষে বন্যাদূর্গত চার শত পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান দুর্ঘটনার কবলে
সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণকালে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান রানওয়েতে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। রানওয়ের ডাম্বেল অতিক্রম করে টার্নিং নিতে গিয়ে বিমানের পিছনের ডান পাশের চাকা রানওয়ের পাশের মাটিতে দেবে যায়। গতকাল শুক্রবার সকালে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে এ ঘটনাটি ঘটেছে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে। তবে বিমানের যাত্রীরা সকলেই অক্ষত রয়েছেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান ৭৪ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসে। বিমানটি সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে যথাসময়ে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করছিল। এ সময় দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে বিমানটি সৈয়দপুর বিমানবন্দরের রানওয়ের ডাম্বেল অতিক্রম (টার্নিং পয়েন্ট) অতিক্রম করে টার্নিং নিতে যায়। এ সময় বিমানটির পিছনের ডান পাশের চাকা রানওয়ের পাশের নেমে মাটিতে দেবে যায়। এতে করে বিমানটির চাকা মাটিতে আটকে পড়ে। পরে বিমানযাত্রীদের অক্ষত অবস্থায় নামিয়ে আনা হয়। এ সময় বিমানটির যাত্রীদের মাঝে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনার পর পরই বিমানটি উদ্ধারে সৈয়দপুর সেনানিবাসের ক্রেন ও উদ্ধারকারী দল, বিমানবন্দর ফায়ার সার্ভিস কাজ শুরু করে। এছাড়াও পরে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে চেপে আসা বিশেষজ্ঞ দল (এক্সপার্ট) উদ্ধার কাজে অংশ নেয়। পরে বেলা পৌনে ২টায় বিমানটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়। সৈয়দপুর বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক শাহীন আহমেদ বিমান দুর্ঘটনাকবলিত হওয়ার কথা স্বীকার করেন। এদিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ইউএস বাংলার বিমানটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ায় তাৎক্ষণিকভাবে সিভিল অ্যাভিয়েশন কর্তৃপক্ষ এখানে সকল বিমান উড্ডয়ন-অবতরণ বন্ধ করে দেয়। এর ফলে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট দেড় ঘন্টা পর বেলা ১০টা ১০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ওই বিমানটির যাত্রা সময় ছিল সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে। ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের সৈয়দপুর স্টেশন ম্যানেজার আশরাফুল ইসলাম লিপ্টন এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এদিকে ওই বিমানের যাত্রী জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম নিজের সরকারি গাড়িসহ কয়েকটি গাড়ি নিয়ে যাত্রীদের উদ্ধার কাজে সহায়তা করেন। দুর্ঘটনার পরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফোনে হুইপ ইকবালুর রহিমসহ সকল যাত্রীর খোঁজখবর নেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেন হুইপ ইকবালুর রহিম। ওই ফ্লাইটে নীলফামারী জেলার ডিমলা-১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা ছিলেন।
নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা
উত্তরাঞ্চলে নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। ফলে ক্ষয়ক্ষতির তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। বাড়ছে বন্যাদুর্গত এলাকায় বানভাসীদের দুর্ভোগ। খাদ্যাভাবে গবাদিপশুরও কষ্টের শেষ নেই। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর - কুড়িগ্রাম : টানা বৃষ্টি ও উজানের ঢলে কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। চিলমারী পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপদসীমার ৩০ সেন্টিমিটার ও সেতু পয়েন্টে ধরলার পানি বিপদসীমার ৫২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। জেলার ৯ উপজেলার ৬৬ ইউনিয়নের ৬ শতাধিক গ্রামের প্রায় ৬ লাখ মানুষ পানিবন্দী জীবনযাপন করছে। গত দুই সপ্তাহের টানা বন্যায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে নদ-নদী তীরবর্তী ইউনিয়নের চর ও দ্বীপচরের বানভাসীরা। কাঁচা-পাকা সড়ক ও গ্রামের হাট-বাজার তলিয়ে থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছে মানুষজন। ঘরের খাবার ফুরিয়ে যাওয়ায় এবং ত্রাণ সহায়তা না পাওয়ায় খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে বানভাসীদের। বন্যাকবলিত এলাকায় দেখা দিয়েছে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট। কুড়িগ্রামে রৌমারী উপজেলার চরশৌলমারী ইউনিয়নের বাসিন্দা আব্দুল কাদের জানান, আজ ১৫ দিন ধরে পানিতে আছি। ঘরে খাবার নাই। কাজ নাই কেমন করে বাঁচি। কেউ খোঁজ নেয় না। কোন সাহায্য পাই নাই। স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘন্টায় চিলমারী পয়েন্টে ব্রহ্মপুত্রের পানি ১৭ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৩০ সেন্টিমিটার এবং সেতু পয়েন্টে ধরলার পানি বিপদসীমার ৫২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নাগেশ্বরী (কুড়িগ্রাম) : নাগেশ্বরীতে নতুন করে দেখা দিয়েছে বন্যা। পানির তীব্র স্রোতে ভেঙে গেছে বেরুবাড়ী বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ, কুমেদপুর সংযোগ সড়ক। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে উপজেলার লক্ষাধিক মানুষ। পৌরসভাসহ ১৪ ইউনিয়ন কমবেশি প্লাবিত। সম্পূর্ণ তলিয়ে গেছে নুনখাওয়া, নারায়নপুর, কেদার, বল্লভেরখাস, কচাকাটা, কালীগঞ্জ, বেরুবাড়ী, বামনডাঙ্গা, রায়গঞ্জ, ভিতরবন্দ এবং নাগেশ্বরী পৌরসভার কিছু অংশ। তলিয়ে গেছে স্কুল, কলেজ, ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট। কোথাও ঘরের চালা ছুঁই ছুঁই পানি। ভেসে গেছে সহস্রাধিক পুকুরের মাছ। বেড়েছে বানভাসীদের দুর্ভোগ। বাড়ি ছেড়ে বউ-বাচ্চা নিয়ে তারা আশ্রয় নিয়েছে বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ ও উঁচু জায়গায়। কোথাও এরকম কোন সুযোগ না থাকায় অনেকেই পরিবার ও গবাদিপশু নিয়ে ভেলায় ভাসছে। ঘরে চাল-ডাল না থাকলেও রান্নার সুযোগ না থাকায় কাটাতে হচ্ছে অর্ধাহার অথবা উপোষে। টিউবওয়েল তলিয়ে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানীয় জলের সংকট। চারণভূমি তলিয়ে যাওয়ায় খেতে না পেয়ে গরুগুলো অনবরত হাম্বা হাম্বা, ছাগলগুলো ম্যা ম্যা করে চলছে। এ সংকট আরও বাড়বে বলে মনে হচ্ছে। রাজীবপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের রৌমারী ও রাজীবপুরে বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে। একদিকে ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি অপরদিকে ভারত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে একাকার হয়ে গেছে সারা এলাকা। ওই দু\'উপজেলার ৮০ ভাগ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় পাঁচশ পরিবারের ঘরবাড়িতে পানি উঠছে। বন্যা আর ঢলের পানিতে প্রায় ৮০ হাজার মানুষ গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে। গতকাল শুক্রবার কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত ১২ ঘন্টায় ব্রহ্মপুত্রের চিলমারী পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৩০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) : টানা তিন দিন ধরলার পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহের পর গতকাল শুক্রবার থেকে ধরলার ভয়াবহ ভাঙন শুরু হয়েছে। উজানের ঢল এলে সব কিছু ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ঘরবাড়িসহ বিভিন্ন ফসল। আবার প্রচন্ড স্রোতে জুতিন্দ্রনারায়ণ, প্রাণকৃঞ্চ, পশ্চিম ধনিরাম, চরকুলাঘাট, জোৎকৃঞ্চহরিতে তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। ধরলার পারের অসহায় মানুষের শেষ সম্বল ভিটেমাটিটুকু রক্ষার প্রয়াস ব্যর্থ হচ্ছে ভয়ঙ্কর গ্রাসের কাছে থেকে। গাইবান্ধা : গাইবান্ধায় প্রতিদিন মুষলধারায় বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। ব্যহ্মপুত্র নদ ছাড়া অন্যান্য নদ-নদীর পানি গতকাল বিকাল পর্যন্ত বিপদসীমার নিচে ছিল। গতকাল ব্রহ্মপুত্রে বিপদসীমার ৩৬ সে: মি: উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। অন্যান্য নদীর পানি বিপদসীমার সামান্য নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। বন্যায় গাইবান্ধার ৭ উপজেলার ৬২টি ইউনিয়ন দীর্ঘ দু\'সপ্তাহ ধরে বন্যার পানিতে ডুবে থাকায়া বন্যা কবলিত এলাকার লোকজনের দুর্ভোগ অসহনীয় পর্যায়ে পেঁৗছেছে। কৃষি বিভাগ জানিয়েছে বন্যায় ৩৯ হাজার ৪৪৮ হেক্টর জমির ফসল অদ্যাবধি পানির নিচে তলিয়ে থাকায় দিশাহারা কৃষকরা দুশ্চিন্তায় দিনযাপন করছে। সারিয়াকান্দি (বগুড়া) : যমুনা ও বাঙ্গালী নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকার মানুষ বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, বন্যায় ১২টি ইউনিয়নের ৬৭টি গ্রামের ২৫ হাজার পরিবারের লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। বন্যায় কৃষকের ২ হাজার ৯৭৫ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে । পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে , যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৬৮ সে:মি: এবং বাঙ্গালী নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৩৮ সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। রাণীনগর (নওগাঁ) : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় ৬শ পুকুর বন্যার পানিতে তলিয়ে প্রায় সাড়ে ৩ কৌটি টাকার মাছ ভেসে যাওয়ায় বিপুল পরিমাণ ক্ষতিতে উপজেলার মৎস্য চাষিরা এখন হতাশায় ভুগছে। বন্যা পরিস্থিতি দফায় দফায় অবনতি হওয়ায় এখনও তিন শতাধিক পুকুর হুমকির মুখে রয়েছে। যে কোন সময় পুকুরের পাড় ভেঙে পানি প্রবেশ করে মাছ ভেসে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। জানা গেছে, নওগাঁর ছোট যমুনা ও আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় গত ২৪ আগস্ট ভোরে রাণীনগর-আত্রাই সড়কের পূর্ব মিরাপুর নামক স্থানে সড়ক ভেঙে যাওয়ায় রাণীনগর উপজেলায় প্রবল বেগে বন্যার পানি প্রবেশ করলে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৭টি ইউনিয়ন পানিতে তলিয়ে যায়। ফলে গোনা ইউনিয়নে ১৮৬টি কাশিমপুর ৫৪টি মিরাট ৭৪টি রাণীনগর সদর ৩৭টি বড়গাছা ৪৫টিসহ ৫টি ইউনিয়নে প্রায় ৬ শতাধিক পুকুর বন্যার পানিতে তলিয়ে গেলে ২২৮.১৪ মেট্রিকটন মাছ ভেসে যায়। যার আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৩ কৌটি ৩৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা বলে রাণীনগর উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা যায়। আত্রাই (নওগাঁ) : নওগাঁর আত্রাইয়ে বন্যাকবলিত মানুষ গবাদিপশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে। গো খাদ্য সংকট, চারণভূমির অভাব, গবাদিপশু রাখার জায়গার অভাব সবকিছু মিলিয়ে বন্যাকবলিত এলাকার লোকজন গবাদিপশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে। অনেকেই এ ঝামেলা এড়াতে পানির দামে তাদের গৃহপালিত পশু বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। জানা যায়, গত ২২ আগস্ট থেকে আত্রাইয়ের বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়। ওই দিন আত্রাই-নওগাঁ পাকা সড়ক ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে যায়। এদিকে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হলে উপজেলা শাহাগোলা, ভোঁপাড়া, মনিয়ারী ও হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের প্রায় শতাধিক গ্রামের প্রায় ৭০ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়ে। একই সাথে এসব অঞ্চলের মাঠগুলো পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় গবাদিপশু নিয়ে পানিবন্দী মানুষের দুর্ভোগ চরমে পেঁৗছে। বর্তমানে গো-খাদ্য সংকট ও গবাদিপশু রাখার জায়গার অভাবে লোকজন পানির দামে তাদের গরু ছাগল বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। উপজেলার জামগ্রামের আজাহার আলী বলেন, আমাদের গ্রামের চতুর্দিকে পানি। গ্রামের অনেক বাড়িতেও পানি ঢুকে যাওয়ায় মানুষ থাকারই জায়গার অভাব হয়েছে। উপরন্তু গরু-ছাগল নিয়ে আমরা আরও দুর্ভোগে পড়েছি। লাভের আশায় গরু-ছাগল প্রতিপালন করলেও পানিবন্দী হওয়ায় আমরা এসব গরু ছাগল আর রাখতে পারছি না। বাজারেও গরু ছাগলের দাম কম হওয়ায় অনেকটা পানির দামে গরু ছাগল বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছি।
 
 
 
পাংশায় গ্রেফতারের পর 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ২
রাজবাড়ী প্রতিনিধি :
সিলেটে বস্নগার শাহরিয়ারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন
সিলেট প্রতিনিধি :
গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী ও শাবি ছাত্র শাহরিয়ার মজুমদারের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে সিলেটের ওসমানী হাসপাতালে তার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। এরপর ওসমানী হাসপাতাল মসজিদে জানাযার নামাজ শেষে মরদেহ নিয়ে গ্রামের কুমিল্লায় নিয়ে গেছেন স্বজনরা। কুমিল্লায় গ্রামের বাড়িতেই তাকে সমাহিত করা হবে বলে জানিয়েছেন তারা।... বিস্তারিত
 
ছাতকে ২ পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ২ আহত ৩৫
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :
তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলায় দু'পক্ষের সংঘর্ষে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের পীরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- পীরপুর গ্রামের সমশের আলীর ছেলে কবির আহমদ (৪০) ও মসিক... বিস্তারিত
 
চট্টগ্রামে মাজারের পীর ও খাদেমকে জবাই করে হত্যা
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
08:50
জোহর
1:15
আছর
05:00
মাগরিব
06:38
এশা
08:30
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: