বগুড়া শনিবার | ১৭ কার্তিক ১৪২১ | ৭ মহররম ১৪৩৬ হিজরি | ১ নভেম্বার ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৪৯০০৩
সার্চ
টাইম বোমাসহ বিপুল বিস্ফোরক উদ্ধার
সিরাজগঞ্জ থেকে জেএমবির সমন্বয়কসহ ৫ জঙ্গি আটক
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
সিরাজগঞ্জ থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) প্রধান সমন্বয়ক আবদুন নূরসহ ৫ জঙ্গিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব-১২)। তাদের কাছ থেকে ৪৯টি প্রাইমারি ডেটোনেটর, ২৬টি ইলেট্রনিক ডেটোনেটর, ৪টি টাইম বোমা, ৩৫ গজ কর্ডেক্স, ১০ কেজি পাওয়ার জেল, ১৫৫টি বিভিন্ন প্রকার সার্কিট, ৫৫টি জিহাদি বই, ৪৫টি বোতাম টাইপ... বিস্তারিত
গ্রেফতারকৃত জেএমবির পাঁচ সদস্য -করতোয়া
নির্বাচিত সংবাদ
জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আনতে তৃণমূল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী করতে হবে জিন্নাহ্ এমপি
জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও বগুড়া জেলা সভাপতি শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ্ এমপি বলেছেন, জাতীয় পার্টি এখন সরকারের পাশাপাশি বিরোধী দলের ভূমিকা পালন করে চলছে। সরকারের ভালো কাজে সমর্থন দিচ্ছে তেমন মন্দ কাজে বিরোধিতা করছে। আগামীতে জাতীয় পার্টি এককভাবে নির্বাচন করতে ক্ষমতায় আসার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আর এজন্য আর বসে থাকার সময় নেই, দলকে তৃণমূল পর্যায় থেকে শক্তিশালী করতে হবে। গতকাল শুক্রবার বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার ময়দানহাট্টা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আলহাজ ইয়াকুব আলী মন্ডলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা জাতীয় পার্টির নেতা সাবেক এমপি শাজাহান তালুকদার, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান বাদশা, সাধারণ সম্পাদক এরফান আলী, স্থানীয় জাতীয় পার্টির নেতা ওহাব আলী, তোজাম্মেল হোসেন, ছরোয়ার জাহান, শফিউল্লাহ্, খালেকুজ্জামান খোকন, ছাইফুল ইসলাম, যুবসংহতি নেতা হোসেন শরিফ সঞ্চয়, ছাত্র সমাজ নেতা ফজলুল হক প্রমুখ। শেষে সর্বসম্মতি ক্রমে আলহাজ ইয়াকুব আলী সভাপতি ও আব্দুল ওহাবকে সাধাণ সম্পাদক করে ময়দান হাট্টা ইউনিয়ন জাতীয় পার্টি গঠন করা হয়। এর আগে আধ্যাপক আব্দুল হান্নানের নেতৃত্বে বিএনপিসহ বিভিন্ন দলের শতাধিক ব্যক্তি এমপি জিন্নাহর হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন।
'অনেক সাধের ময়না' নিয়ে নানা কৌতূহল
দেখতে দেখতে ঘনিয়ে এলো সময়। ৭ নভেম্বর মুক্তি পাচ্ছে বহুল আলোচিত সিনেমা \'অনেক সাধের ময়না\'। কিন্তু সময় যতো ঘনিয়ে আসছে ততোই যেন বাড়ছে কৌতুহল, বাড়ছে সংশয়। কয়েকটি প্রশ্নও জাগছে সেসঙ্গে। কেমন হলো আধুনিক \'ময়না মতির সংসার\', নতুন প্রজন্মের কাছে কতোটা গ্রহণযোগ্যতা পাবে অনেক সাধের ময়না? ১৯৬৯ সালের কাজী জহীরের নির্মাণের সঙ্গে কতোটা সাদৃশ্য খুঁজে পাওয়া যাবে জাকির হোসেন রাজুর নির্মাণ? বাপ্পি-মাহি কী পারবেন চুয়ালি্লশ বছর আগের রাজ্জাক-কবরীর মতো এই প্রজন্মের দর্শক হৃদয় জয় করতে? তবে সব কৌতুহলই পুরোপুরি মিটিয়ে দেবে অনেক সাধের ময়না_ অনেকটা দৃঢ় চিত্তে এমনভাবেই প্রত্যাশা ব্যক্ত করলেন পরিচালক জাকির হোসেন রাজু। অনেক সাধের ময়না নিয়ে জাকির হোসেন রাজু বলেন, ভারতীয় সিনেমায় রিমেকের জোয়ার শুরু হয়েছে দীর্ঘদিন থেকেই। কিন্তু আমাদের দেশে সিনেমা রিমেক করা রীতিমতো দুঃসাহসিক একটা বিষয়। কিন্তু প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সেই দুঃসাহস দেখিয়েছে। তারা যেমন ডুবে যাওয়া চলচ্চিত্রশিরল্পকে আবার তীরে ফিরিয়ে এনেছে, তেমনি চলচ্চিত্রের হারানো ঐতিহ্যকেও পুনরায় প্রতিষ্ঠিত করতে নিরলস প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। মূলত নতুন প্রজন্মকে চলচ্চিত্রের সোনালি পরিবেশকে স্মরণ করে দিতেই কালজয়ী \'ময়না মতির সংসার\'কে আধুনিকভাবে রূপান্তর করেছে। জাকির হোসেন রাজু আরো বলেন, তবে \'অনেক সাধের ময়না\' আধুনিক ভার্সন হলেও আমাদের পুরো ইউনিটের সবারই জোর প্রচেষ্টা ছিল \'ময়না মতির সংসারকে\'ই হুবহ ফুটিয়ে তোলা। এজন্য যখন যা প্রযোজন হয়েছে ঠিক তখনই তা হাজির করা হয়েছে। অভিনয়শিল্পীরাও মন-প্রাণ উজাড় করে কাজ করেছেন। বিশেষ করে বাপ্পি মাহি এবং মিলনের কাছে সিনেমাটিকে এক ধরনের অগি্ন পরীক্ষা মনে হয়েছে। সব মিলিয়ে আমার ভীষণ আত্নবিশ্বাস নতুন শতাব্দীর দর্শকদের কাছেও কালজয়ী হয়ে থাকবে অনেক সাধের ময়না সিনেমাটি।
বগুড়ায় তৈরি হচ্ছে দেশের চারটি ঐতিহাসিক নিদর্শনের রেপ্লিকা
দেশের চারটি ঐতিহাসিক নিদর্শন মহাস্থান, পাহাড়পুর, ষাটগমু্বজ মসজিদ ও কান্তজীর মন্দিরের টেরাকোটার রেপ্লিকা তৈরি হচ্ছে বগুড়ায়। বগুড়া সদর উপজেলার শেখেরকোলা পালপাড়ায় ওই চার এলাকার ৮জন মৃৎ শিল্পীকে এনে হাতে-কলমে রেপ্লিকা তৈরি শেখানো হচ্ছে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক সুফি মোস্তাফিজার রহমান ও তাঁর সংগঠন ঐতিহ্য অন্বেষণ এই প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে শেখেরকোলা পালপাড়ায় রেপ্লিকা তৈরির প্রশিক্ষণ বিষয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের অবহিত করেন অধ্যাপক সুফি মোস্তাফিজার রহমান। তিনি জানান, আমাদের আড়াই হাজার বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্য সমৃদ্ধ নিদর্শন থাকলেও সেসব সর্বসাধারণের নাগালে নেওয়ার কোন ব্যবস্থা নেই। অথচ বিশ্বের বিভিন্ন দেশই তাদের ঐতিহাসিক স্থাপনার রেপ্লিকা তৈরি করে বাজারজাত করে। এর মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে ইতিহাস সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি মমত্ববোধ বাড়ে। সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই ওই চারটি ঐতিহাসিক এলাকার পাশের ৮জন মৃৎশিল্পীকে বগুড়ায় এনে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন এই উদ্যোগে সহায়তা করছে। তিনি বলেন, মহাস্থান এলাকার জন্য সুভাস চন্দ্র পাল ও মিলন রানী, পাহাড়পুর এলাকার জন্য মিন্টু কুমার মালাকার ও তার ভাই রন্টু কুমার মালাকার, ষাটগমু্বজ এলাকার শংকর কুমার পাল ও তার স্ত্রী শিবা রানী পাল এবং কান্তজীর মন্দির এলাকার জন্য রঞ্জন চন্দ্র রায় ও উৎসব চন্দ্র রায়কে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। গত ১৮ অক্টোবর থেকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যান প্রভাষক সোহরাব উদ্দিন সৌরভ এবং সিরাজগঞ্জের প্রসিদ্ধ মৃৎশিল্পী মদন পাল প্রশিক্ষক হিসেবে তাদের হাতে-কলমে রেপ্লিকা তৈরি শেখাচ্ছেন। এইসব নিদর্শন তৈরির প্রশিক্ষণ নিয়ে তারা এলাকায় গিয়ে নিজেরাই তা তৈরি করে বিক্রি করতে পারবেন। ইচ্ছা করলে সেসব তারা কোন দোকানেও বিক্রি করতে পারেন। এতে যেমন তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে, তেমনি বিলুপ্তপ্রায় মৃৎশিল্প আবারও প্রাণ ফিরে পাবে। তাদের স্বাবলম্বী করার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মাঝে ইতিহাস ও ঐতিহ্য সম্পর্কে ধারণার বিস্তার ঘটানোই এই কর্মসূচির মূল উদ্দেশ্য বলে তিনি জানান।
বিএনপির সংবাদ সম্মেলনে মিনু নাটোর থেকে সরকার পতনের ঘোষণা দেবেন খালেদা জিয়া
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু বলেছেন, নাটোরের জনসভা থেকেই দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া বর্তমান অবৈধ সরকার পতন আন্দোলনের ঘোষণা দিবেন। দেশের মানুষ আর এই অগণতান্ত্রিক সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। তিনি বলেন, জীবন দিয়ে হলেও স্বৈরশাসন দমন করে দেশবাসীকে মুক্ত করা হবে। বিএনপি শোষণ ও দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে চায়। বেগম জিয়ার আজ শনিবার নাটোর আগমন উপলক্ষে শুক্রবার জেলা বিএনপি আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। শহরের আলাইপুরস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মিনু বলেন, নাটোর জেলা হচ্ছে আন্দোলনের সূতিগাকার। অতীতে স্বৈরাচার এরশাদবিরোধী আন্দোলনসহ সকল আন্দোলনে নাটোরর মানুষ অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। দেশের সাংগঠনিক ৭২টি জেলার মধ্যে নাটোর জেলা অন্যতম আন্দোলনকারী জেলা। ভবিষ্যতেও আন্দোলনে সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে। তিনি আরও বলেন, দেশের মানুষ গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক সরকার চায়। কিন্তু আওয়ামী লীগ জোর করে ক্ষমতায় এসেছে। বর্তমান পার্লামেন্টে ১৫৪ জন সদস্য ভোটে নির্বাচিত নয়। অন্য যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা শতকরা ৫ ভাগ ভোট পেয়েছেন। তাই বর্তমান পার্লামেন্ট বৈধ নয়, সরকারও বৈধ নয়। সরকার দেশের মানুষকে খুন, গুম ও সন্ত্রাস উপহার দিয়েছে। জনগণের টাকা লুটপাট করে দেশকে আবারও তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিণত করা হয়েছে। জাতি এই সরকারের কাছ থেকে মুক্তি পেতে চায়। সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, ১ নভেম্বর বেগম খালেদা জিয়ার জনসভা শুধু উত্তরবঙ্গের নয়, দেশের বৃহত্তম ঐতিহাসিক জনসভায় পরিণত হবে। এজন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। শুধু জনসভাস্থল নয়, পুরো নাটোর শহর লোকারণ্যে পরিণত হবে। কিন্তু সরকারদলীয় লোকজন ঈর্ষান্বিত হয়ে জনসভা বানচালে নানা ষড়যন্ত্র করছে। নাটোরের সর্বস্তরের মানুষ এই ষড়যন্ত্র প্রতিহত করবে। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক ২০ দলীয় জোটের জেলা আহ্বায়ক আমিনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক মেয়র কাজী শাহ আলম, রহিম নেওয়াজ, গোলাম সারোয়ার, মেয়র শেখ এমদাদুল হক আল মামুন প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে আজকের ২০ দলীয় জোট আয়োজিত খালেদা জিয়ার জনসভা সফল করতে নাটোরবাসী, প্রশাসন ও সাংবাদিকসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
স্বাধীন বাংলাদেশের মালিক কোন দল নয় ড. কামাল হোসেন
বাংলাদেশ গণফোরামের সভাপতি প্রখ্যাত আইনজীবী ও অন্যতম সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, স্বাধীন বাংলাদেশের মালিক কোন দল নয়। দেশের সাধারণ মানুষ এই দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার মালিক। যারা এ কথা বিশ্বাস করেন না, মানেন না তারা সংবিধানকে অশ্রদ্ধা করছেন। সভা, সমিতি ও স্বাধীনভাবে কথা বলার অধিকার সবারই আছে। এটা কারো দয়া মায়ার উপর নির্ভর করে না। যারা মনে করে তাদের অনুমতি ছাড়া সভা, সমিতি করা যাবে না। তারা অসুস্থ, তাদের জন্য আমার দুঃখ হয়। গতকাল শুক্রবার বিকেলে নাটোরের লালপুর উপজেলার নির্যাতিত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামী ব্যক্তিত্ব দীনেশ চন্দ্র বিশ্বাসের স্মরণসভা স্থগিত করা হলেও ড. কামাল হোসেন প্রোগ্রাম বাতিল না করে স্ব-উদ্যোগে লালপুরে উপস্থিত হন এবং গোপালপুর টেম্পু স্ট্যান্ডের কড়ইতলায় পথ সভায় দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। দীনেশ চন্দ্র বিশ্বাস স্মৃতি সংসদের সভাপতি সুকুমার সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সুপ্রিম কোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী এড. সুব্রত চৌধুরী, গণতান্ত্রিক আইনজীবী সমিতির সহসভাপতি জগলুল হায়দার আফরিক, গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, গণফোরামের নাটোর জেলা কমিটির সভাপতি তমিজ উদ্দিন, জয়পুরহাটের আক্কেলপুরের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক বাবলু প্রমুখ। এর আগে ড. কামাল হোসেন উপজেলার দুয়ারিয়া গ্রামে দীনেশের বাড়িতে তার বৃদ্ধ মা ও পরিবারের সাথে দেখা করেন এবং দীনেশ সম্পর্কে প্রখ্যাত সাংবাদিক ও কলামিস্টদের সব লেখার সমন্বয়ে প্রণীত \'দীনেশ বিশ্বাসের জীবন ও কর্ম\' নামক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন ও \'দীনেশ বিশ্বাস কল্যাণ ট্রাস্ট\' এর উদ্বোধন করেন।
দৈনিক করতোয়ায় সংবাদ প্রকাশের পর নির্মাণ করা হচ্ছে গেট এই সেই রেলক্রসিং যেখানে গত ৫ বছরে প্রাণ হারিয়েছে ১২ জন
বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার ভেলুরপাড়া রেল স্টেশনের উত্তর পাশে রেল ক্রসিং-এ দীর্ঘদিন যাবৎ গেটম্যান না থাকায় গত ৫ বছরে প্রাণ হারিয়েছে ১২ জন। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দৈনিক করতোয়ায় প্রকাশিত হলে টনক নড়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। ফলে ওই ক্রসিং-এ গেট, গেটম্যানের ঘর ও গেটম্যানের ব্যবস্থা করেছে রেল বিভাগ। এতে করে জনগণ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। সান্তাহার-লালমনিরহাট মিটারগেজ রেল সড়কের বগুড়ার সোনাতলা উপজেলায় ভেলুরপাড়া রেল স্টেশনের উত্তর পাশের রেলক্রসিংয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ কোন গেটম্যান না থাকায় প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হতে হতো পথচারীদের। এমনকি গত ৫ বছরে উপজেলার শিচারপাড়া গ্রামের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা রাঙ্গাসহ বিভিন্ন এলাকার প্রায় ১ ডজন মানুষ ওই রেলক্রসিং-এ প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়াও বালুয়া রাবেয়া রহমান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষিকাসহ প্রায় ৩০/৩৫ জন ব্যক্তি পঙ্গুত্ববরণ করেছেন। এ সংক্রান্ত সচিত্র প্রতিবেদন দৈনিক করতোয়ায় প্রকাশিত হলে টনক পড়ে রেল বিভাগের। ওই রেল ক্রসিং-এ গেটম্যানের ঘর সহ আনুষঙ্গিক নির্মাণের জন্য রেল বিভাগ টেন্ডার আহবান করে। পরে লটারির মাধ্যমে ঠিকাদার নিযুক্ত হয়ে ওই রেলক্রসিং-এ গেটম্যানের ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। এমনকি ওই ঘরটি নির্মাণ করা হলে ওই রেলক্রসিং-এ ২৪ ঘন্টা একজন গেটম্যান নিযুক্ত থাকবে। অপরদিকে উপজেলার বগুড়ার সোনাতলা রেল স্টেশনের বাসস্ট্যান্ড রেলগেট, হাসপাতাল রোড রেলগেট, মাগুরা দহ রেলগেট, সুজাইতপুর-রানীরপাড়া সড়কের রেলগেট, শিচারপাড়া রেলগেট, ভেলুরপাড়া রেলস্টেশনের উত্তর পাশের রেলগেট ও সৈয়দ আহম্মদ কলেজ স্টেশনের উত্তর ও দক্ষিণ পাশের রেলগেটে নেই গেটম্যান। স্থানীয়রা জানিয়েছে, অরক্ষিত আরও ৮টি রেলক্রসিংয়ের মধ্যে ৩টি রেলক্রসিংয়ে গত ৫ বছরে নিহত হয়েছে আরও ৩ জন। ২০০৬ সালে এপ্রিল মাসে সৈয়দ আহম্মদ কলেজ স্টেশনের দক্ষিণ পাশের রেলক্রসিং-এ গেটম্যান না থাকায় ট্রেনের ধাক্কায় বালু বোঝাই ট্রলি চূর্ণবিচূর্ণ হয়ে যায়। এতে করে চালকসহ ৩ জন ব্যক্তি প্রাণ হারায়। একই বছর নভেম্বরে সোনাতলা হাসপাতাল সড়কে ট্রেনের ধাক্কায় এক সাইকেল আরোহী নিহত হয়। রেলক্রসিং এলাকার লোকজন জানিয়েছেন, অরক্ষিত রেলক্রসিংগুলোর ধারে ঘরবাড়ি ও ঝোপ- জঙ্গল থাকার কারণে চালকরা ট্রেন দেখতে না পাড়ায় অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। স্থানীয়দের অভিযোগ, রেলক্রসিংয়ের পাশে যাত্রীদের সতর্কতার সাথে পারাপারের সাইনবোর্ড বসিয়ে মুক্ত রেলওয়ে কর্মকর্তারা। তাদের দাবি, অরক্ষিত রেলক্রসিংগুলোতে দ্রুত সময়ের মধ্যে গেটম্যান নিয়োগ দেয়ার। তাছাড়া ট্রেন দুর্ঘটনায় মৃত্যুর মিছিল আরও বাড়বে। সোনাতলা রেলস্টশনের স্টেশন মাস্টার জানান, গেটম্যান দেয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে।
জাসদ কেবলমাত্র রাজনৈতিক দল নয় একটি আন্দোলন তানসেন এমপি
বগুড়া জেলা জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের সভাপতি ও কাহালু - নন্দীগ্রাম এলাকার সংসদ সদস্য রেজাউল করিম তানসেন বলেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ কেবলমাত্র একটি রাজনৈতিক দল নয় একটি আন্দোলন। ১৯৭২ সালের ৩১ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে জাসদের আত্মপ্রকাশ ঘটলেও এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অতীত আছে। ১৯৭১ সালের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্র ও রাজনৈতিক শক্তি হিসাবে জাসদের জন্ম হয়। দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বিকেলে শহরের সাতমাথায় জেলা জাসদের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এ কথা বলেন। ভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য জাসদ নেতা আমিনুর ইসলাম মিটু, জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, শ্রমিক জোটের সভাপতি এড. ইমদাদুল হক. শ্রমিক নেতা মকবুল হোসেন, জাসদ নেতা মালেক সরকার, তুহিন চৌধুরী, এড. আব্দুল লতিফ পশারী ববি, জীবন কৃষ্ণ যাদব, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আতিকুজ্জামান তুহিন, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন দুখু, যুবজোট সেক্রেটারী ওবায়দুল হক প্রমুখ। সভায় বক্তারা মুক্তিযুদ্ধের সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মৌলবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান জানান ও সেই সাথে অবিলম্বে সকল যুদ্ধাপরাধীর বিচারের রায় ও শাস্তি দ্রুত কার্যকর করার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান।
সিরাজগঞ্জ থেকে জেএমবির সমন্বয়কসহ ৫ জঙ্গি আটক
সিরাজগঞ্জ থেকে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) প্রধান সমন্বয়ক আবদুন নূরসহ ৫ জঙ্গিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব-১২)। তাদের কাছ থেকে ৪৯টি প্রাইমারি ডেটোনেটর, ২৬টি ইলেট্রনিক ডেটোনেটর, ৪টি টাইম বোমা, ৩৫ গজ কর্ডেক্স, ১০ কেজি পাওয়ার জেল, ১৫৫টি বিভিন্ন প্রকার সার্কিট, ৫৫টি জিহাদি বই, ৪৫টি বোতাম টাইপ সার্কিট, ৩টি ইগনাইটর, ১টি পাওয়ার রেগুলেটর পাওয়া যায়। যার মধ্যে বেশ কয়েকটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম ছিল। গতকাল শুক্রবার ভোর ৩টার দিকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের পাশে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কড্ডা এলাকার শহীদ এম, মনসুর আলী রেলস্টেশন থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় তারা ঢাকাগামী একটি ট্রেনে ছিলেন। আটকের পর গতকাল শুক্রবার বিকেল ৫টায় র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান। অন্য ৪ সহযোগী হলো- জেএমবি এহসার সদস্য নুর ইসলাম ও নুরুজ্জামান আরিফ এবং গয়েরে এহসার সদস্য আবুল কালাম আজাদ ও ফারুক আহমেদ। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে সিরাজগঞ্জের মনসুর আলী রেল স্টেশন থেকে আবদুন নূরসহ অন্য ৪ সহযোগীকে আটক করে র‌্যাব-১২। তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে গাজীপুরের জয়দেবপুরের উদ্দেশে আসছিলো। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে তাদের আটক করা হয়। এসময় আটকদের তল্লাশি করে ৪৯টি প্রাইমারি ডেটোনেটর, ২৬টি ইলেক্ট্রনিক ডেটোনেটর, ৪টি টাইম বোমা, ৩৫ গজ কর্ডেক্স, ১০ কেজি পাওয়ার জেল, ১৫৫টি বিভিন্ন প্রকার সার্কিট, ৫৫টি জিহাদি বই, ৪৫টি বোতাম টাইপ সার্কিট, ৩টি ইগনাইটর, ১টি পাওয়ার রেগুলেটর পাওয়া যায়। যার মধ্যে বেশ কয়েকটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম ছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, সমপ্রতি বড়ধরনের নাশকতার পরিকল্পনা ছিলো তাদের। রাজনৈতিক অস্থিরতা মধ্যে তারা এ ঘটানো সুযোগ নিতে চেয়েছিল। নূর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জেএমবির প্রধান। ৫বছর জেল খাটার পর ২০১০ সালে জেল থেকে বের হয় নূর। তিনি আরো জানান, আবদুন নূর মূলত বাংলাদেশে অবস্থান করে আত্মগোপনে থাকা জেএমবির আমির সোহেল মাহফুজের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করত এবং জেএমবিকে পুনরায় সংগঠিত করার জন্য নতুন সদস্যপদ সংগ্রহের চেষ্টা করতে থাকে। এ জন্য জেলখানায় অবস্থান করা জেএমবি শীর্ষ নেতা ও দেশের বাইরে আত্মগোপনে থাকা জেএমবির সক্রিয় সদস্যদের সঙ্গেও যোগাযোগ রক্ষা করতো নূর। তিনি জানান, আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা শেষে কোর্টে পাঠানো হবে।
রাজধানীর বিএসইসি ভবনে ফের আগুন
রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বাংলাদেশ ইম্পাত ও প্রকৌশল করপোরেশন (বিএসইসি) ভবনের এগারো তলায় অবস্থিত \'দৈনিক আমার দেশ\' অফিসে গতকাল শুক্রবার দুপুরে অগি্নকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে পত্রিকাটির বেশির ভাগ জিনিসপত্র পুড়ে গেছে। ওই ভবনেই রয়েছে দুটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভি ও আরটিভির অফিস। এই দুটি চ্যানেলের সমপ্রচার সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ ছিল। প্রায় দুই ঘন্টার চেষ্টায় ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে অগি্ন নির্বাপক কর্মীরা। তবে এতে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করেছে বিএসইসি কর্তৃপক্ষ। ফায়ার সর্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ জানায়, গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টা ৪৮ মিনিটে ওই ভবনে আগুন লাগার খবর পেয়ে অগি্ন নির্বাপক বাহিনীর ১৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে কাজ শুরু করে। বেলা ১টা ৫৬ মিনিটে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসার কথা জানান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক আলী আহমেদ খান। এনটিভি, আরটিভি, আমার দেশ এবং বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান মিলিয়ে প্রায় ৩০টি প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় রয়েছে ওই ভবনে। ২০০৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি এই ভবনে আগুন লেগে এনটিভি, আরটিভি ও আমার দেশসহ ১০টি প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় পুড়ে যায়, মৃত্যু হয় তিন জনের। অগি্ন নির্বাপক কর্মীরা তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ জানাতে পারেননি। ওই ভবনের বিভিন্ন কার্যালয়ের কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১১ তলায় আমার দেশের একটি গুদাম থেকে আগুনের সূত্রপাত। দশম তলায় একটি ল ফার্মের কর্মী বাবলু বলেন, শর্ট সার্কিট হলে স্পার্ক করার যে রকম শব্দ হয়, তেমন আওয়াজ পেলাম হঠাৎ। এরপর আমার দেশের দারোয়ান নেমে এসে চিৎকার করে সবাইকে নেমে যেতে বলে। ধোঁয়া দেখে তাড়াতাড়ি আমরা সবাই নেমে পড়ি। আগুন লাগার পর ভবনের ১১তলা থেকে প্রচুর কালো ধোঁয়া আমার দেশের কর্মী মাহমুদা ডলি বলেন, তাদের পত্রিকা বন্ধ থাকলেও অনলাইন নিয়মিত কাজ চলে। আমাদের অফিস আজ (গতকাল) সকালে নিকেতনে শিফট করার কথা ছিল। এ কারণে নিউজ রুমের কেউ সকালে অফিসে ছিলেন না। আমার কাছে ঘটনাটি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। আগুন লাগার খবর পেয়ে এনটিভির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসাদ্দেক আলী ফালু ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বারবারই এ ভবনে আগুন লাগে, আর আমি বারবারই ক্ষতিগ্রস্ত হই। তদন্ত হয় কিন্তু রিপোর্ট পাই না। তদন্ত কি হয় তা জানা যায় না। বার বার এ ভবনে আগুন লাগে কেন তা জানা দরকার। আমি সকলের দোয়া চাই। আমার দেশ কার্যালয় স্থানান্তরের বিষয়টি জানা ছিল না বলে জানান পত্রিকাটির সাবেক এই মালিক। আরটিভির বিশেষ প্রতিনিধি শামীমা আক্তার জানান, ভবনের ১১তলায় আমার দেশের গোডাউন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে বলে তারা জানতে পেরেছেন। ১১ তলার উত্তর পূর্ব কোনে আমার দেশের গোডাউন, সেখানেই প্রথমে আগুন দেখা যায়। আমাদের সবাই নিরাপদে নেমে এসেছে। ওই ফ্লোরের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে ব্যারিস্টার তানজিমুল হকের ল\' চেম্বার। বাকিটা আমার দেশের কার্যালয়। আমার দেশের অফিস সহকারী আব্বাস আলী হাওলাদার বলেন, আমরা অফিস পরিবর্তনের জন্য পাঁটা এসি ও চেয়ার লিফটে নামায়েছি। আরো মাল নামানোর প্রস্তুতি চলছিল। এ সময় উত্তর-পূর্ব দিকের স্টোর রূমে আগুনের ফুলকি দেখা যায়। স্টোর রূম তালাবন্ধ ছিল। স্টোর রুমের চাবি যার কাছে থাকে, তাকে ফোন করে ডেকে আনা হয় এরপর। চাবি খুলে নিজের আগুন নেভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেন তারা। তারপর ভবন থেকে নেমে পড়েন। ১১ তলা থেকে আমার সবার পরে নেমেছি। ১২/১৩ ছিলাম। কেউ আটকা পড়েনি বলেই মনে হয়। বেলা ১টা ২৫ মিনিটে ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশনস) মোহাম্মদ মাহাবুব সাংবাদিকদের জানান, তারা আগুন মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এসেছেন। ধোঁয়াও কমে এসেছে। ১১ তলা থেকে আগুন আর নিচে নামবে না বলেই তাদের মনে হয়েছে। ১১ তলায় কাগজ জাতীয় প্রচুর দাহ্য পদার্থ ছিল। তাই নিয়ন্ত্রণে আনতে কষ্ট হয়েছে। এরপর বেলা ১টা ৫৬ মিনিটে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসার কথা জানান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক। তিনি বলেন, তিনি নিজে ১১ তলায় গিয়ে পরিস্থিতি দেখে এসেছেন। কেউ হতাহত বা আটকা পড়ে থাকার তথ্য পাননি। আগুন নেভানোর কাজ যখন চলছে, তখনই বিএসইসি ভবনের নিচে পৌঁছান শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। ২০০৭ সালে এ ভবনে অগি্নকা ের পর যে তদন্ত কমিটি হয়েছিল, তার প্রতিবেদনের বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, আমি বিষয়টি দেখব। এখন আমার জানা নেই। বিএসইসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইমতিয়াজ হোসেন চৌধুরী জানান, সংস্থার পরিচালক (অর্থ) সৈয়দ মোজাম্মেল হককে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন তারা। কমিটিকে ১০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। আগুন লাগার খবর পাওয়ার পরপরই সংবাদকর্মীরা বিএসইসি ভবনের সামনে ভিড় করেন। ওই রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে আগুন দেখে বিপুল সংখ্যক মানুষ ভবনের আশেপাশে ভিড় করলে যানজট সৃষ্টি হয়। অগি্নকান্ডের জন্য সরকার দায়ী: ফখরুল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বাংলাদেশ ইম্পাত ও প্রকৌশল করপোরেশন (বিএসইসি) ভবনের অগি্নকান্ডের জন্য সরকারকে দায়ী করে করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক বিবৃতিতে বলেন, সরকার কোনো প্রতিষ্ঠানকে বিরোধী মনে করলেই সেটিকে ধ্বংস করার জন্য তৎপর থাকে। এই কারণেই আমার দেশ পত্রিকা, এনটিভি ও আরটিভি নিশ্চিতভাবেই সরকারি নাশকতার শিকার। অগি্নকান্ডের ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে \'নাশকতায় জড়িতদের\' দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি। আলাদা বিবৃতিতে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান বলেন, এই অগি্নকান্ড আমার দেশ পত্রিকার গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র পুড়ে গেছে। এই অগি্নকান্ডের পিছনে কোনো রহস্য আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা প্রয়োজন। ক্ষতিগ্রস্তদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও দাবি জানান এই জামায়াত নেতা। এনটিভি ও আরটিভির সমপ্রচার শুরু রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বিএসইসি ভবনে আগুনের ঘটনায় সাময়িক বন্ধ থাকার পর আবারও চালু হয়েছে এনটিভি ও আরটিভির সমপ্রচার। এনটিভির সমপ্রচার গতকাল দুপুর পৌনে ১টা পর্যন্ত বন্ধ থাকে। বিকল্প ব্যবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টার এটি চালু করা হয়। আর আরটিভির সমপ্রচার ফের শুরু হয় রাত ৮টা ৫ মিনিটে। এর আগে ২০০৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি এ ভবনটিতে আগুন লেগে পুড়ে যায় এনটিভি, আমার দেশ ও আরটিভিসহ ১০টি প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়।
রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের কুমার জীবনের অবসান
বহু প্রতিক্ষীত কুমার জীবনের অবসান ঘটলো রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হকের। বাজলো বিয়ের সানাই। ফুটলো বিয়ের ফুল। গতকাল শুক্রবার বিকেলে কুমিল্লার চান্দিনার মিরাখলা গ্রামের এডভোকেট হনুফা আক্তার রিক্তাকে ৫ লাখ ১ টাকা দেনমোহরানায় স্ত্রী হিসাবে কবুল বললেন মন্ত্রী মুজিবুল হক। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য মুজিবুল হক বর্তমান সরকারের রেলপথমন্ত্রী। বর্তমানে তার বয়স ৬৭। এডভোকেট হনুফা আক্তার রিক্তার সাথে তার পরিচয় প্রায় ৩ বছর পূর্বে। গতকাল শুক্রবার কবুল বলে মুজিবুল হক ও হনুফা আক্তার রিক্তা দু\'জন একে অপরকে আপন করে নেন। মন্ত্রীর বিয়ের বিষয়টি ছিল বেশ কিছুদিন ধরে দেশবাসীর মুখে মুখে। গত বুধবার ঢাকা ফার্মগেট সংলগ্ন খামারবাড়ি কৃষি ইনষ্টিটিউটে জমকালো গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানের পর সবার নজর ছিল কুমিল্লার চান্দিনার মিরাখলা গ্রামে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার দিকে। গতকাল সকাল সোয়া ১১ টায় ঢাকার বেইলি রোডের মিনিস্টার এপার্টমেন্ট থেকে বর বেশে রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক শতাধিক গাড়ি বহর নিয়ে কুমিল্লার চান্দিনার গল্লাই ইউনিয়নের মিরাখলা গ্রামে যখন পেঁৗছান তখন বিকেল পৌনে ৩ টায়। গায়ে গোলাপী শেরওয়ানি, মাথায় সোনালী পাগড়ি ও পায়ে রাজকীয় নাগরা পরিহিত অবস্থায় কনে বাড়িতে পৌছেন রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক। গতকাল শুক্রবার বিকেল ৩টায় ৭শ\' বরযত্রীর বিশাল গাড়ি বহর নিয়ে কনে রিক্তার পত্রিালয়ে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মিরাখল গ্রামে পৌছান তিনি। এ সময় বিয়ে বাড়িতে বরবেশে রেলমন্ত্রীকে দেখতে আসা উৎসুক জনতা ও আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে সাড়া পড়ে যায়। এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা থেকে এসে বরযাত্রী বহর কুমিল্লার দাউদকান্দি ঈদগাহ মাঠে জুমার নামাজ শেষে কনে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। বিকেল পৌনে ৩টায় মিরাখল গ্রামের পাশে তালতলা বাজারে পৌছার পর বরযাত্রীদের ৫০টিরও বেশি বিভিন্ন মডেলের গাড়ি পার্কিং করা হয়। পরে শুধু বরবাহী গাড়িটি পেঁৗছে কনে বাড়ির বিয়ের গেটে। এসময় গেটে উপস্থিত তরুনীরা ফুলের পাঁপড়ি ছিটিয়ে বরকে বরণ করে নেন। ব্যাপক আনন্দে সরগরম হয়ে ওঠে গোটা বিয়ে বাড়ি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। শ্বশুরালয়ে পৌছার পর স্টেজে উঠে প্রাথমিক নিয়ম কানুন শেষে স্টেজ ছেড়ে ছুটে যান অতিথিদের প্যান্ডেলে। সেখানে অবস্থানরত অতিথিদের সাথে কুশল বিনিময় ও তাদের খাওয়া দাওয়া হয়েছে কিনা এসব বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। পরে সেখান থেকে ছুটে যান খাবারের প্যান্ডেলে। ওই প্যান্ডেলে থাকা রাজনেতিক নেতাকর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তা থেকে শুরু করে অতিথিদের খোঁজ খবর নেন তিনি। পরে বেলা সাড়ে ৩ টায় মুজিবুল হক কুমার জীবনের অবসান ঘটিয়ে নিকাহ রেজিষ্ট্রার মাওলানা ছিদ্দিকুর রহমানের কাছে কবুল বলেন। এর আগে কনে হনুফা আক্তার রিক্তা কবুল বলেন। বিয়ের দেনমোহর ছিল ৫ লাখ ১ টাকা। বিয়ের অনুষ্ঠানে আসা বর যাত্রী মন্ত্রীর ভাতিজা এড. আবুল খায়ের বলেন, কাকা এই বয়সে এসেও বিয়ে করায় আমরা অনেক খুশি। আমরা পরিবারের লোকজন আনন্দিত, যা এই মুহুর্তে বলে বোঝানো যাবে না। বরযাত্রী ইউছুফ বলেন, আমাদের মুজিব ভাই বিয়ে করছেন, সেই বিয়ের বর যাত্রী হতে পেরে আমি অনেক খুশি। কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মাসুদ পারভেজ খাঁন ইমরান বলেন, মন্ত্রীর বিয়েতে আমি খুশি, তার দাম্পত্য জীবন সুখের হউক। এছাড়াও বর মুজিবুল হকের রাজনৈতিক কর্মী শাহিনুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর আলম রতন, আতিকুর রহমান পিন্টু, রুপম, সজল প্রমূখ জানান,আজ আমাদের খুশির দিন। কনের খালাতো ভাই লুৎফুর রেজা খোকন জানান, আমাদের বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রায় ৫শ\' বরযাত্রীসহ প্রায় দেড় হাজার লোকের খাওয়ার ব্যবস্থা ছিল। এজন্য ৫০টি খাসি, ৪ শতাধিক দেশী মুরগি ছিল। আমন্ত্রিত অতিথিদের জন্য খাবার তালিকায় ছিল খাশির কাচ্চি বিরিয়ানী, খাশির জালি কাবাব, শাহী জর্দা, আলু বোখারার চাটনী, বোরহানী, কোমল পানীয় এবং ঢাকা থেকে আনা মূখরোচক শাহী পান। তিনি আরো বলেন, এসকল রান্না-বান্নায় ১৪টি চুলা ব্যবহৃত হয়েছিল। বিয়েতে আসা উল্লেখযোগ্য অতিথিদের মাঝে ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম, তাজুল ইসলাম এমপি, অধ্যাপক আলী আলী আশ্রাফ এমপি, এড.আব্দুল মতিন খসরু এমপি, নুরুল ইসলাম এমপি, কুমিল্লা জেলা পরিষদ প্রশাসক ওমর ফারুকসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ-ছাত্রলীগ ও অংগ-সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। জামাই মন্ত্রীর জন্য আস্ত খাসি জামাই রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের জন্য কনেপক্ষ রান্না করেছে বিশেষ খাবার। ১৬ কেজি ওজনের আস্ত খাসির রোস্ট ফণঠ খাবারের তালিকায়। বিশাল আকারের ডিসে জামাইয়ের খাবার পরিবেশন করা হড। চারপাশে ফণঠ ১০টি ইলিশ মাছ, ১০টি আস্ত মুরগীর রোস্ট এবং মাঝে ১৬ কেজি ওজনের খাসির রোস্ট। রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও তার ঘনিষ্ট বন্ধু-বান্ধবরা এ আয়োজনে অংশ নেন। বিয়ের অনুষ্ঠানস্থলে কনে হনুফা আক্তার রিক্তার ভাতিজা শোয়েব আক্তার বলেন, অনুষ্ঠানে অতিথিরদের জন্য দুপুরের খাবারের মেন্যুতে রয়েছে খাসির কাচ্চি, মুরগীর রোস্ট, কোমল পানীয়, মিষ্টান্ন জর্দা এবং বোরহানী। বিয়ের মূল অনুষ্ঠানের পরপরই অতিথিদের আপ্যায়ন করা হড। ফুলশয্যা ঢাকায় অবশেষে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের সুদীর্ঘকালের একাকিত্ব ঘুচলো। শুরু হলো বিলম্বিত যুগল জীবনযাত্রা। সোনালি হেমন্তে এই যাত্রায় তার চিরসঙ্গী হলেন হনুফা আক্তার রিক্তা। গতকাল রাতেই ঢাকার মন্ত্রিপাড়ার বাসায় হয়েছে ফুলশয্যা। রিক্তার বড়ভাই আলাউদ্দিন মুন্সি বলেন, সিতাহার, কণ্ঠহার, কানের দুল, আংটি, টিকলি, চুড়ি, নলক ও ব্রেসলেট পাঠিয়েছেন হবু জামাই রেলমন্ত্রী। সোনা সব মিলিয়ে ১৫ ভরির মতো হবে। এছাড়া সাজের অন্যান্য সামগ্রিও পাঠিয়েছেন আগেই। কনে পক্ষের জন্য পাঠিয়েছেন ৩৫টি শাড়ি, যা আত্মীয় স্বজনদের দেওয়া হয়েছে। কনের জন্য বেনারশী ও কাতানসহ মোট ৫টি শাড়িও পাঠানো হয়েছে। কনের রূপসজ্জার জন্য ঢাকার নামকরা একটি বিউটিপার্লার থেকে বিউটিশিয়ান নিয়ে আসা হয়। প্রায় সাতজন বিউটিশিয়ান সকাল থেকে বউকে সাজিয়েছেন। এদিকে রেলমন্ত্রী বিয়ের অনুষ্ঠানের ভিড়ের মধ্যে সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুর মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ খোয়া যায়। এ ছাড়া ১০-১৫ জন গণমাধ্যমকর্মীরও মোবাইল ফোনও খোয়া গেছে বলে তারা অভিযোগ করেছেন। এই বিয়ে নিয়ে দেশজুড়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। মন্ত্রীর বিয়ে নিয়ে মানুষের কৌতূহলের শেষ নেই। আগামী ৫ নভেম্বর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের নিজ বাড়িতে যাবেন রেলমন্ত্রী। ৬ নভেম্বর সেখানে বৌভাত। ঢাকায় ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ ভবনের এলইডি হলে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা।
 
 
 
খালেদা জিয়ার জনসভা আজ নাটোরে
নাটোর প্রতিনিধি :
বিএনপি চেয়ারপারসন ও জোটপ্রধান বেগম খালেদা জিয়া আজ শনিবার বিকালে নাটোরের নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা সরকারি কলেজ মাঠে ২০ দলীয় জোটের জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন।
জোট সূত্রে জানা গেছে, প্রধান অতিথি বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের আগে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখবেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব... বিস্তারিত
 
সাবেক ছাত্রলীগ নেতাসহ গ্রেফতার ২
বগুড়ায় দু'দলের সংঘর্ষে আওয়ামী লীগ নেতা নিহত : গুলিবিদ্ধ ২
স্টাফ রিপোর্টার :
বগুড়া সদরের শাখারিয়া ইউনিয়নে বিবাদমান দু'পক্ষের সংঘর্ষে মোয়াজ্জেম ম ল (৫৫) নামের এক আওয়ামীলীগ নেতা নিহত ও দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। নিহত মোয়াজ্জেম মন্ডল চালিতাবাড়ি উত্তর পাড়ার আফজাল হোসেন ম লের ছেলে। তিনি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ নূরুল ইসলাম (২২) ও মোয়াজ্জেম... বিস্তারিত
 
প্রধানমন্ত্রীর কথায় 'আশা' দেখছে বিএনপি
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
'গণতান্ত্রিক সরকার যেকোনো সময় নির্বাচন দিতে পারে'- প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্যে দ্রুত নির্বাচনের আশা দেখছে বিএনপি। গতকাল শুক্রবার সকালে এক যৌথসভা শেষে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলম বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, গণতান্ত্রিক সরকার যেকোনো সময়ে নির্বাচন দিতে পারে। আমরা মনে করি, এই বক্তব্যের... বিস্তারিত
 
আমরা আমলাতন্ত্র নয়, গণতন্ত্র চাই এরশাদ
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমরা আমলাতন্ত্র নয়, গণতন্ত্র চাই। আমরা জনগণের ক্ষমতায়নে বিশ্বাস করি। তিনি বলেন, উপজেলা পরিষদ এখন আমলারা চালায়। বাংলাদেশে গণতন্ত্র কেবল একদিনেই আসে, তা হলো ভোটের দিনে। জাতীয় পার্টি একদিনের গণতন্ত্রে বিশ্বাসী নয়। আমরা ক্ষমতায় গেলে উপজেলা চেয়ারম্যানদের হাতে... বিস্তারিত
 
ফারুকী হত্যা মামলার বাদীকে মারধর
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস
: ইসলামী ফ্রন্টের নেতা নুরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার মামলার এক বাদী দুর্বৃত্তের হামলার শিকার হয়েছেন। ইমরান হোসেন তুষার নামে ওই বাদী বলেছেন, বৃহস্পতিবার রাতে এক দল যুবক তাকে শাহজাহানপুর রেল কলোনি মাঠে ডেকে নিয়ে মারধর করে। ইসলামী ফ্রন্টের অনুসারী
ইসলামী ছাত্রসেনার ঢাকা মহানগর... বিস্তারিত
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: