বগুড়া সোমবার | ৭ আশ্বিন ১৪২১ | ২৬ জিলকদ ১৪৩৫ হিজরি | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৫৪৪৪১
সার্চ
কৌশল পরিবর্তন ক্রেতাদের
জয়পুরহাটে আরও ৩৭ জনের কিডনি বিক্রি : নিখোঁজ ১২
বেনজীর আহম্মেদ, কালাই (জয়পুরহাট) :
জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার ২৩ গ্রামের আরও অন্তত ৩৭ জন ঋণগ্রস্ত অভাবী মানুষ বিদেশে গিয়ে তাদের দেহের মূল্যবান সম্পদ কিডনি ও যকৃৎ বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিক্রেতাদের মধ্যে বাড়িঘর ছেড়ে নারী-পুরুষ মিলে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ১২জন। তবে কিডনি বিক্রির খবর যাতে সহজে প্রকাশ না হয় সেজন্য কৌশল... বিস্তারিত
উপরে বাঁ থেকে (১) নতুন কিডনি বিক্রেতা কালাই উপজেলার বোড়াই গ্রামের মোকাররম হোসেন, (২) উলিপুর গ্রামের আজাদুল, (৩) সিমরাইল গ্রামের আবেদুর রহমান, মাঝে বাঁ থেকে (৪) ছাকোয়াত, (৫) আব্দুর রহিম, নিচে বাঁ থেকে (৬) ভেরেন্ডি গ্রামের শাহারুল, (৭) বোড়াই গ্রামের বেলাল উদ্দিন ও (৮) জোসনা বেগম -করতোয়া
নির্বাচিত সংবাদ
তুরস্কে পালিয়েছে প্রায় ৬০ হাজার সিরীয় কুর্দি
এক মাসেরও বেশি সময় ধরে ইরাকে ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিদের ওপর বিমান হামলা পরিচালনা করছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু আইএস\'কে যুক্তরাষ্ট্রেরই গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ গোপনে মদত দিচ্ছে বলে বিশ্বাস করেন অনেক ইরাকি। রোববার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে আলোচিত এ \'ষড়যন্ত্র তত্ত্ব\' নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে খোদ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক টাইমস। সিআইএ ও ইসলামিক স্টেটের কথিত আঁতাতের গুজব বাগদাদের রাস্তা থেকে সরকারের শীর্ষ পর্যায় পর্যন্ত আলোচিত হচ্ছে বলে ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলা বাগদাদের এ তত্ত্বে আস্থাশীলদের বিশ্বাস এতটুকু কমাতে পারেনি। শনিবার শিয়া সমপ্রদায়ের ধর্মীয় নেতা মোকতাদা আল সদরের ডাকে বাগদাদে যুক্তরাষ্ট্রের সম্ভাব্য স্থলসেনা মোতায়েনের বিষয়ে সতর্ক করে একটি বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। ওই সমাবেশে ইরাকের একজন উপপ্রধানমন্ত্রী বাহা আল আরাজি বলেছেন, আইএস\'কে কারা তৈরি করেছে তা আমরা জানি। এর আগে গত সপ্তাহে আল সদর প্রকাশ্য এক বক্তৃতায় আইএস\'কে তৈরি করার জন্য সিআইএ\'কে দায়ী করেছেন। ইরাকি পার্লামেন্টের কয়েক ডজন সদস্যসহ জনসভায় উপস্থিত কয়েক হাজার মানুষও এমনটিই মনে করেন বলে জানিয়েছেন টাইমসের প্রতিবেদক। উপপ্রধানমন্ত্রী আরাজি\'কে যুক্তরাষ্ট্রের এক সাংবাদিক, আইএস\'র বিষয়ে সিআইএ\'কে দায়ী করার বিষয়টি খোলসা কর্ েবলতে বললে তিনি কিছুটা পিছিয়ে গিয়ে বলেন, আমি জানি না। আমি ওই সাধারণ মানুষেরই একজন। তবে নিজের গাড়ির দিকে হেঁটে যেতে যেতে তিনি বলেন, কিন্তু আমরা অনেক শঙ্কায় আছি। ধন্যবাদ। ২০০৩ সালে ইরাক দখলের এক দশকেরও বেশি সময় পর যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের আবার ইরাকে ফেরার সম্ভবনায় \'ষড়যন্ত্র তত্ত্ব\' বাগদাদবাসীদের মনে গভীর সংশয় তৈরি করেছে। এই সংশয়ের বিষয়ে একমত ৪০ বছর বয়সী হায়দার আল আসাদি বলেন, আইএস পরিষ্কারভাবে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি, আর আইএস\'র অজুহাতে যুক্তরাষ্ট্র ফের ইরাক দখল করার চেষ্টা করছে। ইরাকে যুক্তরাষ্ট্রের স্থলসেনা পাঠানো হবে না বলে ওবামা প্রতিশ্রুত দিলেও খুব কম ইরাকিই তার কথা বিশ্বাস করেছেন। বাগদাদবাসী রাদ হাতেম বলেন, আমরা তাকে বিশ্বাস করি না।
সংস্কারের অভাবে নষ্ট হওয়ার উপক্রম সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ভবন
নির্মিত হওয়ার দীর্ঘ ৮ বছর অতিবাহিত হলেও সংস্কার না হওয়ার কারণে দিনাজপুর জেলার সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ৩য় তলা বিশিষ্ট ভবনটি নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। সেতাবগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের এসও (ভারপ্রাপ্ত) মেহফুজ আহম্মেদ জানান, ২০০৬ সালে বোচাগঞ্জ উপজেলার সেতাবগঞ্জ পৌর শহরের সুবিদহাট (হাজিপাড়া) এলাকায় সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ভবন নির্মিত হয়। সে সময় ২টি অগি্ননির্বাপক গাড়ি, ১ জন এস,ও, ১ জন সহকারী এস ও ৮ জন ফায়ার ম্যান, ২ জন ড্রাইভার, ২ জন কর্মচারী সর্বমোট ১৪ জনের একটি স্টাফ দিয়ে এই ফায়ার স্টেশনটির দেখা শুনা দায়িত্ব দেয়া হয়। ২০০৬ সালের পর দীর্ঘ ৮ বছরে এই ৩য় তলা ভবনটির কোন সংস্কার করা হয়নি। যার ফলে প্রতি বছরই রোদ ও পানিতে ভবনটির রং নষ্ট হয়ে বিভিন্ন স্থান দিয়ে পানি চুয়ে পড়ছে। এছাড়াও ভবনের ভিতরের বিভিন্ন জায়গায় নষ্ট হওয়ায় ভবনটি ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়ছে। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে তারা বলেন, সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ভবনটি মন্ত্রণালয়ের খাতায় না উঠায় মেরামত করা সম্ভব হচ্ছে না। দিনাজপুর জেলার একটি ঐতিহ্যবাহী ব্যবসা ও শিল্প এলাকা হিসেবে সেতাবগঞ্জ পরিচিত। এখানে ১টি আধুনিক চিনিকলের পাশাপাশি ১৫টি অটো রাইস মিল, ৩শতাধিক রাইস মিল, বিভিন্ন ছোটখাটো কল কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। প্রতি বছরই শুকনো মৌসুমে এখানে বিভিন্ন ধরনের অগি্নকান্ড ঘটে থাকে যা থেকে পরিত্রাণের জন্য সেতাবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে। এলাকাবাসীর সুবিধার্থে অবিলম্বে ভবনটি সংস্কার ও প্রয়োজনীয় সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিএনপিকে উন্নয়নের পথে ফিরে আসতে হবে এমপি গোপাল
সংসদ সদস্য মনোরঞ্জনশীল গোপাল বলেছেন, জনগণ সন্ত্রাস, ভাঙচুর, অগি্নসংযোগকারীদের পছন্দ করে না। তাই জনগণের চাহিদা মেটাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিএনপিকে উন্নয়নের পথে ফিরে আসতে হবে। গত শনিবার দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার মটিয়া কুড়া স্কুল মাঠ প্রাঙ্গণে ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে চেক বিতরণ এবং চক মহাদেব বাগানবাড়ী ও বৈরাগী বাজারে বিদ্যুতায়ন উপলক্ষে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মোহনপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি তাইজুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম, উপজেলা আ.লীগের সভাপতি জাকারিয়া জাকা, সাধারণ সম্পাদক দেবেশ চন্দ্র রায়, পল্লীবিদ্যুতের ডিজিএম শাহীন চৌধুরী, বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি শওকত হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান দিনেশ চন্দ্র রায়, মোহনপুর ইউনিয়নের আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জিয়াউর রহমান জিয়া, উপজেলা আ.লীগ নেতা ইয়াসিন আলী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫ জনের মাঝে ৫ লাখ ৯০ হাজার টাকা চেক বিতরণ করা হয়।
সাদুল্যাপুরে ব্রিজ ভেঙে গর্তের সৃষ্টি : ঝুঁকি নিয়ে যান চলাচল
সাদুল্যাপুর-ধাপেরহাট পাকা সড়কের বকশিগঞ্জ বাজারের পশ্চিম পাশে ব্রিজের মাঝে বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন এলাকাবাসী। গুরুত্বপূর্ণ ওই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, চাকরিজীবীসহ শতশত যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। স্থানীয়রা জানান, এক সপ্তাহ আগে হঠাৎ করেই ব্রিজের মাঝখানে ভেঙে গিয়ে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়। বর্তমানে ব্রিজের গর্তের মাঝে গাছের ডাল দিয়ে রাখা হয়েছে যাতে সহজে পথচারীদের দৃষ্টি যায়। গর্তের কারণে এলাকার জনসাধারণসহ যানবাহন চলাচলের সময় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। দিনের বেলা কোন রকমে চলাচলা করলেও সন্ধ্যার পর অন্ধকারে চলাচলে আরও বেশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন পথচারী ও যাত্রীসাধারণ। এছাড়া ব্রিজের উপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল অসম্ভব হয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন উপজেলা ও জেলা প্রশাসনের অনেক লোকজন যাতায়াত করেন। কিন্তু ভেঙে যাওয়া গর্ত সংস্কারের জন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি। ব্রিজটি শিগগিরই সংস্কার না করলে বড় ধরনের দুর্ঘটনার ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। ধাপেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শিপন জনসাধারণের দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে বলেন, ব্রিজের গর্ত ও সংস্কারের বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী মো. আজিজুল হক জানান, ব্রিজটি সংস্কারের জন্য বরাদ্দ চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। বরাদ্দ পেলেই ব্রিজটি সংস্কার করা হবে।
নওগাঁয় আসাদুল হত্যার মূল আসামি সম্রাট ও সুমন গ্রেফতার
নওগাঁয় রিকশাচালক আসাদুল ইসলামকে জবাই করে হত্যার মূল আসামিসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো শহরের পার-নওগাঁ হাজীপাড়া মহল্লার আজিজুর রহমানের ছেলে সম্রাট (২৭) ও একই মহল্লার মৃত শহীদুল হকের ছেলে সুমন (২৮)। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আফজাল হোসেন জানান, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত শনিবার নিহতের স্ত্রী গ্রেফতারকৃত সাবিনা ইয়াসমিনকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে সে এই হত্যাকান্ডের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ গতকাল রোববার ভোরে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে সম্রাট ও সুমনকে গ্রেফতার করে এবং হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ধারালো ছুরি উদ্ধার করে। সম্রাট ও সুমন পুলিশের নিকট হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেছে। পরকীয়ার কারণে এই হত্যাকান্ডটি করেছে বলে জানান তারা। পুলিশ গ্রেফতারকৃতদের জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। উল্লেখ্য, আসাদুল (৩৪) গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে যায়নি। পরদিন সকালে শহরের পুরতান কোর্ট এলাকায় ছোট যমুনা নদীর পারাপার ঘাটে নদীর পশ্চিম তীরে তার ক্ষতবিক্ষত জবাই করা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। রিকশাচালক আসাদুল ইসলাম শহরের চকবাড়িয়া গ্রামের আফছার আলীর ছেলে।
জয়পুরহাটে আরও ৩৭ জনের কিডনি বিক্রি : নিখোঁজ ১২
জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার ২৩ গ্রামের আরও অন্তত ৩৭ জন ঋণগ্রস্ত অভাবী মানুষ বিদেশে গিয়ে তাদের দেহের মূল্যবান সম্পদ কিডনি ও যকৃৎ বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বিক্রেতাদের মধ্যে বাড়িঘর ছেড়ে নারী-পুরুষ মিলে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ১২জন। তবে কিডনি বিক্রির খবর যাতে সহজে প্রকাশ না হয় সেজন্য কৌশল পরিবর্তন করা হয়েছে। এবার কিডনি বিক্রেতাদের নাম ঠিক রেখে বদলানো হচ্ছে মূল ঠিকানা। অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হচ্ছে বাবা-মার ভূয়া নাম। কিডনি গ্রহীতার সাথে বিক্রেতার রক্তের সম্পর্ক দেখিয়ে নেয়া হচ্ছে কিডনী গ্রহীতাদের স্ব-স্ব এলাকার ইউনিয়ন/পৌরসভা থেকে কিডনি বিক্রেতার জন্মনিবন্ধন ও নাগরিকত্ব সনদ। এছাড়াও তৈরি করা হচ্ছে ভূয়া জাতীয় পরিচয়পত্র। জালিয়াতি করা হচ্ছে পাসপোর্ট ও ডাক্তারি ব্যবস্থাপত্রে। এদিকে প্রশাসনের যথাযথ মনিটরিং না থাকায় জামিনে থাকা মূল হোতাসহ নতুন নতুন দালাল চক্রের বিরুদ্ধে অভিনব কৌশলে কিডনি কেনা-বেচার অভিযোগ উঠেছে। আগের চেয়ে বেশি দামে কিডনি ক্রয়ের লোভ দেখিয়ে নতুন দালালরা গোপনে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম-মহল্লার ঋণগ্রস্ত অভাবী ও খেটে খাওয়া মানুষদের এখন নিত্যদিন এলাকা ছাড়া করার অপতৎপরতা চালাচ্ছে। সরেজমিন এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কিডনি বিক্রি দালাল চক্রের মূল হোতা কালাই উপজেলার আব্দুস সাত্তার, ঢাকার তারেক আজম, মাহমুদ, কবির, সিরাজগঞ্জের মকবুল ও বাগেরহাটের সাইফুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে নতুনভাবে কিডনি কেনাবেচার দালালি শুরু করেছেন কালাই উপজেলার তাজুল ইসলাম, হেলাল, গাজী, নূরনবী, খোরশেদ, মোশার্রফ, শফি, রাসেল, শাহিন, মোস্ত, আব্দুল মান্নান, মোশারফ ও নারায়ণগঞ্জের মকবুলসহ আরও অনেকে। তবে মামলা ও প্রচার মাধ্যমের সুবাদে দেশজুড়ে হৈচৈ শুরু হওয়ার পূর্বে যারা কিডনি বিক্রি করেছিল, তাদের অধিকাংশেরই কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল দেশের ঢাকাস্থ স্বনামধন্য সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে। কিন্তু বর্তমানে দেশজ কোন হাসপালে কিডনি প্রতিস্থাপন না করার কারণে কিডনি বিক্রেতারা দেশের বাইরে বিশেষত ভারতের ব্যাঙ্গালোরে অবস্থিত কলম্ব এশিয়া হাসপাতাল, রবীন্দ্র-দেবীশেটি হাসপাতাল, মেডিকা হাসপাতাল ও সিঙ্গাপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে গিয়ে তাদের কিডনি প্রতিস্থাপন করছেন। নারায়ণগঞ্জের দালাল মকবুলের মাধ্যমে ভারতে কিডনি বিক্রি করতে গিয়ে দরদামে বনিবনা না হওয়ায় ফিরে এসেছেন কালাই উপজেলার বৈরাগী হাটের রিপন ও দুর্গাপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক আমিনুল ইসলাম। অনুসন্ধানে জানা গেছে, কিডনি বিক্রির এ প্রবণতা এখন আর কেবলমাত্র জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। দেশের আরও অন্তত ৬টি জেলার (ঢাকা, মাগুরা, রাজশাহী, সিলেট, সিরাজগঞ্জ ও বরিশাল) ঋণগ্রস্ত অভাবী মানুষেরা এখন নিজ দেহের মূল্যবান সম্পদ কিডনি বিক্রি করেছেন এবং কিডনি বিক্রির উদ্দেশ্যে নারী-পুরুষ মিলে অন্তত ৫০ জন বিদেশে (বিশেষ করে ভারত ও সিঙ্গাপুরে) অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে। আরও জানা গেছে, জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার অভাবী মানুষেরা গত ৬ মাসে ফের নতুনভাবে কিডনি বিক্রি করেছেন। অভিনব কৌশলে কিডনি গ্রহীতার সাথে বিক্রেতার রক্তের সম্পর্ক দেখিয়ে নাম ঠিক রেখে মূল ঠিকানা, বাবা-মার নাম, পাসপোর্ট ও ডাক্তারি ব্যবস্থা পত্র জালিয়াতির মাধ্যমে আবারও বিক্রি করতে শুরু করেছেন মানব দেহের মূল্যবান অঙ্গ কিডনি। এমন কয়েক জনের জাতীয় পরিচয় পত্র ও পাসপোর্ট পর্যবেক্ষণকালে নানা অসঙ্গতি দেখা গেছে। এমন কয়েক জন হলেন- কালাই উপজেলার বোড়াই গ্রামের মোকার্রম, বিনইল পশ্চিম গুচ্ছগ্রামের জবুনা বেগম, সিমরাইল গ্রামের আব্দুর রহিম ও উলিপুর গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা আজাদুল। কিন্তু কিডনী গ্রহীতাদের স্ব-স্ব এলাকার ইউনিয়ন/পৌরসভা থেকে কিডনি বিক্রেতার জন্মনিবন্ধন ও নাগরিকত্ব সনদ ও পাসপোর্টে মোকার্রমের কেবলমাত্র নাম ঠিক রেখে কিডনী গ্রহীতার সাথে আপন ভাইয়ের সম্পর্ক দেখিয়ে তাকে কুমিল্লা সদরের স্থায়ী বাসিন্দা দেখানো হয়েছে। এভাবে জবুনাকে খুলনা বসুপাড়া এতিমখানা রোড়ের এবং আব্দুর রহিমকে ফেনি সদরের স্থায়ী বাসিন্দা দেখানো হয়েছে। তবে আজাদুলের পাসপোর্টে তার প্রকৃত নাম ও ঠিকানার পরিবর্তন করে ব্যবহার করা হয়েছে মো. আজাদ হোসেন। স্থায়ী ঠিকানা দেখানো হয়েছে জাপান গার্ডেন সিটি বাংলাদেশ-০১। অন্যজন হলেন কালাই উপলোর বোড়াই গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা জোসনা বেগম। জোসনার পাসপোর্ট ও ডাক্তারি ব্যবস্থাপত্রে তার প্রকৃত নাম ও ঠিকানার পরিবর্তন করে ব্যবহার করা হয়েছে মাহফুজা বেগম। স্থায়ী ঠিকানা দেখানো হয়েছে- সালামাইদ, গুলশান, ভাটারা, ঢাকা-১২১২ । এদিকে কালাই উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম-মহল্লার অন্তত ৩৭ জন ফের নতুন করে মানবদেহের মূল্যবান অঙ্গ কিডনি বিক্রি করেছে। এ তালিকায় রয়েছে উপজেলার বোড়াই গ্রামের মোকার্রম হোসেন, বেলাল উদ্দীন ও তার স্ত্রী জোসনা বেগম, বিনইল পশ্চিম গুচ্ছগ্রামের জবুনা বেগম, সিমরাইল গ্রামের আবেদুর রহমান, ইসলাম মিয়া, আব্দুর রহিম, এনামূল, সাকোয়াত ও মোত্তালেব, আরবাব গ্রামের আফজাল, পাইকপাড়া গ্রামের শহীদুল ইসলাম, রঘুনাথপুর গ্রামের জাকারিয়া, ভেরে-ির শফিক ও শাহারুল, পাইকপাড়া গ্রামের শহিদুল, দুর্গাপুরের রাজিয়া, বৈরাগিরহাটের তোফাজ্জল, ভূসা গ্রামের মানিক, আঁকলাপাড়া গ্রামের আনোয়ার, টাকাহুত গ্রামের সেলিনা, উলিপুর গ্রামের আজাদুল ইসলাম ও ছারভানু; কুসুমসাড়ার মোস্তফা, জয়পুর বহুঁতি গ্রামের গোলাম হোসেনের মেয়ে শাবানা ও খাদিজা, ফুলপুকুরিয়া গ্রামের মুসা, সুড়াইল গ্রামের সাইফুল এবং কালাই পৌরসভার থুপসাড়া মহল্লার বিপ্লব হোসেন ফকির। এছাড়াও কিডনি বিক্রি উদ্দেশ্যে নিরুদ্দেশ রয়েছে বিনইল পশ্চিম গুচ্ছগ্রামের মরিয়ম, মেরিনা, শেফালি, ইঁটাতলা গ্রামের মোজাহারের স্ত্রী, বোড়াই গ্রামের তানজিমা, দুর্গাপুর গ্রামের আনোয়ার, সুজাউল, শাহেনা, সেলিনা ও শাওনী, জয়পুর বহুঁতি গ্রামের জাহেদা কেগম ও বায়েজিদ; পাইকপাড়ার ছাইদুরসহ আরও অনেকে। অন্যদিকে জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের কলিজা বিক্রিকারী মেহেদুলের বুকের কাটা অংশ এখনও জ্বালা-পোড়া করে বলে সে জানায়। নতুন কিডনি বিক্রেতা বিনইল পশ্চিম গুচ্ছগ্রামের জবুনা বেগম জানান, অভাবের কারণে স্বামী ও তিন সন্তান নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে দিন কাটতো তাদের। এজন্য দাদন ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন এনজিওতে অনেক টাকা ঋণ হয়। দাদন ব্যবসায়ীর সুদের টাকা ও এনজিওর কিস্তির টাকা যোগাড় করতে তাদের হিমসিম খেতে হয়। নিরুপায় হয়ে একদিন তার স্বামী ঢাকার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমায়। স্বামীর খোঁজে ঢাকায় মিরপুরের একটি বাসায় গিয়ে ঝিয়ের কাজ করে। এ সময় পার্শ্ববর্তী বাসার ভাড়াটিয়া সেলিমের ঝিয়ের সাথে যমুনার পরিচয় হয়। সে যমুনাকে তার মালিক সেলিমের কিডনি নষ্টের কথা বলে। সে আরও বলে, কেউ কিডনি বিক্রি করলে তার মালিক মোটা দামে তা কিনে নেবে। দেনা শোধের এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জবুনা তার কিডনি ভারতের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর-দেবীশেটি হাসপাতালে গিয়ে প্রতিস্থাপন করে। নয়াপাড়া গ্রামের ভুট্টুর ছেলে নতুন দালাল তাজুলের মাধ্যমে ভারতের মেডিকা হাসপাতালে গিয়ে ৪ লাখ টাকার চুক্তিতে কিডনি বিক্রি করলেও সে পেয়েছে মাত্র দেড় লাখ টাকা। বাকী আড়াই লাখ টাকা গেছে দালালের পেটে। নতুন কিডনি বিক্রেতা বোড়াই গ্রামের মোকার্রম বলেন, অভাব আমাদের নিত্য সঙ্গী। এলাকাবাসীর কাছে বিভিন্ন সময় সাহায্য সহযোগিতা চেয়েও কারও কোন সাড়া পাইনি। এমনকি দিনের পর দিন কাজের জন্য ধর্ণা দিলেও কেউ কোন কাজতো দেয়ইনি বরং করেছে তিরস্কার। অর্থাভাবে যখন দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে তখন উপায়ন্ত না পেয়ে ঢাকায় গিয়ে রিক্সা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ শুরু করি। এরই মাঝে এদিন আমার রিক্সায় ওঠেন কুমিল্লার শাহীনের সাথে। হয় নানা কথোপকথোন। এক সময় আমার ঠিকানা ও পরিচয় পেয়ে হঠাৎ কথার মোড় ঘুরিয়ে আমাকে তার ফার্মে চাকরি করার প্রলোভন দিয়ে তার ভিজিটিং কার্ড দেয়। তার কথা মতো আমি নতুন কাজে যোগ দেই। কিছুদিন পর আমার অভাবের সুযোগ নিয়ে শাহীন তার নিজের সুস্থতার জন্য আমাকে একটি কিডনি বিক্রি করার জন্য নানা প্রলোভন দেখায়। এক পর্যায়ে আমি সাড়ে তিন লাখ টাকার বিনিময়ে কিডনি দেই। কিন্তু আমাকে সমূদয় টাকা দেয়া হয়নি। নতুন কিডনি বিক্রেতা সিমরাইল গ্রামের আব্দুর রহিম জানান, মোসলেমগঞ্জ বাজারের কয়েকজন দাদন ব্যবসায়ীর কাছে রহিমের হফ্কা ঋণ (দাদন) নেয়া ছিল ৪০ হাজার টাকা, আর ৩টি এনজিওতে ঋণ নেয়া ছিল ৬০ হাজার টাকা। তাই হফ্কা ঋণ ও এনজিওর ঋণের কিস্তির টাকার চাপে পড়ে তিনি ঢাকায় গিয়ে রিক্সা চালাতেন। বাড়িতে স্ত্রীসহ ৩ কন্যা ছিল। টাকার জন্য অন্তঃসত্তা বড় মেয়েকে ওর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা নিয়ে যেত না। অনেক দুঃখ আর কষ্টে যখন তার দিশেহারা অবস্থা, সে সময় এদিন তার রিক্সায় ওঠেন শাহজাহান নামের ফেনির এক ভদ্রলোক। তিনি ঢাকায় একটি ব্যাংকের একজন কর্মকর্তার চাকরি করেন। এভাবে নানা আলাপচারিতায় তার কিডনি নষ্টের বিষয় জানতে পেরে এক পর্যায়ে ৩ লাখ টাকার চুক্তিতে ভারতের দেবীশেটি হাসপাতালে গিয়ে রহিম তার কিডনি বিক্রি করে ৪ মাস পর বাড়ি ফিরে নগদ টাকাসহ মেয়েকে শ্বশুর বাড়িতে পাঠিয়ে দেন, আর যাবতীয় ঋণ পরিশোধ করেন। আড়াই বছর আগে কিডনি বিক্রি করেছেন এমন একজন হলেন উপজেলার উতরাইল গ্রামের মিজান। আহম্মেদাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল খয়ের মওলা বলেন, হফ্কা ঋণ আর বিভিন্ন এনজিও\'র কিস্তির চাপে এলাকার বিভিন্ন গ্রামের ঋণগ্রস্ত মানুষ কিডনী বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে বলে তারা জানায়। এটি নিয়ন্ত্রণে ব্যাংক ঋণ গ্রহণের পূর্বে যেমন অন্যান্য ব্যাংকগুলোতে ঋণগ্রহণে আগ্রহীর ঋণ আছে কিনা তা জানার জন্য অনুসন্ধান করা হয়, নেয়া হয় স্থানীয় ব্যাংগুলোর ক্লিয়ারেন্স সদন। এনজিও\'র ঋণ বিতরণেও অনুরূপ পদক্ষেপ নিলে কিডনি বিক্রির প্রবণতা বন্ধ হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। কালাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিনফুজুর রহমান মিলন বলেন, ঋণগ্রস্ত অভাবী মানুষেরা কিডনী বিক্রির ভয়ংকর পেশায় যেন সোনার হরিণ খুঁজে পেয়েছে। দালালদের প্রলোভনে পড়ে তারা স্বেচ্ছায় অঙ্গহানী করে বাড়ি ফিরছে। অভাব তাড়াতে আত্মঘাতি পথ বেছে নিলেও মুক্তি মিলছে না কারোর-ই। উল্টো অল্প বয়সে অসুস্থ ও কর্মহীন হয়ে পড়ছে তারা। মোটিভেশন করেও কোন কাজ হচ্ছে না। এটি নিয়ন্ত্রণে এনজিও-ব্যাংক এখনই দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য জেলা প্রশাসকের সাথে কথা হয়েছে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ৩০ আগস্ট গণমাধ্যমগুলোতে কালাই উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের ঋণগ্রস্ত ও অভাবি মানুষ দালালদের ফাঁদে পড়ে ব্যাপকহারে তাদের কিডনি বিক্রির খবর প্রকাশ হয়। ফলে প্রশাসনের টনক নড়ে। এরপর কালাই থানার উপ-পরিদর্শক নিপেন্দ্রনাথ ঘোষ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় কিডনি বিক্রি দালাল চক্রের মূল হোতা কালাই উপজেলার আব্দুস সাত্তার, ঢাকার তারেক আজম ও বাগেরহাটের সাইফুলসহ অন্তত ১০ দালালকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন। গ্রেফতারকৃত দালাল ও কিডনি দাতাদের দেয়া জবানবন্দিতে কিডনি কেনাবেচায় ঢাকার নামী দামী হাসপাতাল ও নামকরা চিকিৎসকদের জড়িত থাকার কথা উঠে আসে। ইতোমধ্যে আইনের বিভিন্ন ফাঁক-ফোঁকরে গ্রেফতারকৃত ওইসব দালাল জামিন নিয়ে বেরিয়ে আসে। তদন্ত শেষে পুলিশ দায়সারা গোছের একটি অভিযোগপত্র বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করে। এছাড়াও কিডনি কেনা-বেচায় জড়িত দালাল চক্রের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৫ ও ১৩ সেপ্টেম্বর ২টি এবং ২০১৪ সালের ৩০ জানুয়ারিতে কালাই থানায় আরও একটি মামলা হয়।
প্রধানমন্ত্রীর নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন। জাতিসংঘের ৬৯তম সাধারণ অধিবেশনে অংশ নিতে ১৮০ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে গতকাল রোববার রাত নয়টা ৪৫ মিনিটে শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নিউইয়র্কের উদ্দেশে যাত্রা করেন তিনি। এমিরেটসের ইকে-৫৮৫ ফ্লাইটে রাতে দুবাইয়ে আড়াই ঘণ্টার যাত্রাবিরতির পর আজ সোমবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে (বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা) নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী। বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাতে উপস্থিত ছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ। আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশের আইজি, তিন বাহিনীর প্রধ?ান। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডবি্লউ মজীনা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র সফর করছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, খাদ্যমন্ত্রী মো. কামরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা হোসেন তওফিক ইমান, অর্থ উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ডা. দীপু মণি। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব, সিনিয়র সচিব, প্রেসসচিব, পররাষ্ট্র সচিব, নৌ, পরিবেশ, স্বাস্থ্য ও শ্রমসচিবসহ, উচ্চ পর্যায়ের বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তা, কূটনীতিকগণ ছাড়াও রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ সাংবাদিক ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হচ্ছেন। নিউইয়র্ক পৌঁছানোর পর যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন ও জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ড. একে আবদুল মোমেন প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবেন। সফরসঙ্গীদের নিয়ে তিনি ম্যানহাটানের হোটেল গ্র্যান্ড হায়াতে অবস্থান করবেন। জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কাতারের আমীর তামিম বিন মোহাম্মদ আল থানি, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী মিস এরনা সলবার্গ, বেলারুশের প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিয়াসনিকোভিচ, নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালার সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক করবেন। ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের অভ্যর্থনা অনুষ্ঠান এবং ২৩ সেপ্টেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামার দেওয়া অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানেও যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। ২৯ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক ছাড়ার পর ৩০ সেপ্টেম্বর ও ১ অক্টোবর লন্ডনে ২ দিনের যাত্রাবিরতি করে ২ অক্টোবর সকালে দেশে ফিরবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
ফুলগাজীতে আওয়ামী লীগ ও দৌলতপুরে বিএনপি প্রার্থী জয়ী
ফেনীর ফুলগাজী উপজেলায় উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত এবং কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাইদ আনছারী বিপ্লব জয়লাভ করেছে। একরামুল হকের মৃত্যুতে শূন্য ফেনীর ফুলগাজী উপজেলায় উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগেরই আবদুল আলিম। গতকাল রোববার দিনভর ভোটগ্রহণের পর সন্ধ্যায় দোয়াত-কলম প্রতীকের আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আলিমকে বিজয়ী ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহিদুর রহমান। আলিম পেয়েছেন ৪৭ হাজার ২৬৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত মাহতাব উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী মিনার আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ২৮৯ ভোট। আওয়ামী লীগ নেতা একরাম হত্যাকান্ডের আসামি মিনার ভোটের কয়েক ঘণ্টা আগে ঢাকায় গ্রেফতার হন। ভোট গ্রহণের মধ্যে রোববার দুপুরে তাকে কারাগারে পাঠানো হলে তার এজেন্ট ও সমর্থকরা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয়। এই উপনির্বাচনের ৩০টি কেন্দ্রের সবকটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ১৯৪টি বুথ ও কেন্দ্রের চারপাশে পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত ছিল। প্রতিটি কেন্দ্রে আনসার, পুলিশ ও র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি টহল ছিল। এছাড়া প্রতি দুই কেন্দ্রে একজন করে ১৫ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত ছিল। দৌলতপুরে বিএনপির জয় কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাইদ আনছারী বিপ্লব বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। গতকাল রোববারের এ নির্বাচনে বিপ্লব পেয়েছেন ৯,১৬৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী তারেক আল মামুন পেয়েছেন ৫,১৮৮ ভোট। ভোট গণনা শেষে সন্ধ্যায় ফল ঘোষণা করেন উপনির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম। সকাল ৮টায় উপনির্বাচনে এ ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্রে একযোগে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলে। বৃষ্টি উপেক্ষা করে কেন্দ্রগুলোতে দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেন ভোটররা। এ উপনির্বাচনে প্রতিদ্বনি্দ্বতা করেন পাঁচজন প্রার্থী। এ ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৬৭৫ জন। রিটার্নিং কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফিরোজ আল মামুন উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় পদটি শূন্য হয়।
বিজয়নগরে নির্বাচনী সহিংসতায় যুবক নিহত
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের চম্পকনগর ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে সহিংসতায় বাবুল মিয়া (২৫) নামে এক যুবক গুলিতে নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার বিকেলে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর সন্ধ্যায় ওই যুবক মারা যান। বাবুল মিয়া চম্পকনগর ইউনিয়নের সাটিরপাড়া গ্রামের আবদুল হেকিমের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চেয়ারম্যান প্রার্থী হামিদুল হক হামদুর সমর্থকরা বিকেল ৩টার দিকে পেটুয়াজুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র দখল করে। এসময় অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী জাকির হোসাইন শাহআলমের সমর্থকরা বাধা দিলে দু\'দলের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এসময় দু\'দলের সমর্থকদের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। গুলিতে বাবুল মিয়া আহত হন। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে সন্ধ্যার দিকে মারা যান বাবুল। ওই সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ১৬/১৭ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বিজয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুর রব জানান, দু\'পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে বাবুল মারা গেছে।
টানা বর্ষণে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতা : বেড়েছে বিড়ম্বনাসহ দুর্ভোগ
একটানা প্রবল বর্ষণে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তলিয়ে গেছে নদী_নালা, খাল-বিল। এসব এলাকার বাসিন্দা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও অফিসগামীদের বিড়ম্বনাসহ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অপরদিকে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে উঠতি বিভিন্ন ফসল ও সবজির ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো আরও খবর- নাটোর : নাটোরে গত শনিবার রাত থেকে টানা প্রবল বর্ষণে শহরের অধিকাংশ এলাকায় পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এসব এলাকার বাসিন্দা ও স্কুল ও অফিসগামীদের বিড়ম্বনাসহ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অপরদিকে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে উঠতি বিভিন্ন ফসল ও সবজির ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। তবে কৃষি বিভাগ ক্ষতির আশঙ্কাকে নাকচ করে দিয়ে বলছেন, বৃষ্টিপাতে ক্ষতি নয়, কৃষকের সেচ সুবিধার সহায়তা হবে। সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, শনিবার রাত ১১টা থেকে শুরু গতকাল রোববার বিকেল পর্যন্ত টানা ১৮ ঘন্টার প্রবল বর্ষণে নাটোর শহরের আলাইপুর, কানাইখালী, চৌকিরপাড়, হরিশপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা ও বাড়ি ঘরে পানি জমে গেছে। ফলে এসব এলকার বাসিন্দাদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। রাস্তায় পানি জমে যাওয়ায় স্কুল ও অফিসগামীদের বিড়ম্বনাসহ দুর্ভোগের শিকার হতে হয়েছে। শহরের নিচ এলাকাগুলোতে ঘরের মধ্যে পানি ঢুকে পড়ায় গৃহিণীরা ঘর থেকে বের হতে পারছে না। এলাকাবাসী জানান, সামান্য বৃষ্টি হলেই শহরের এসব জায়গায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। এ জন্য তারা নাটোর পৌরসভার তত্ত্বাবধানে নির্মিত অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থাকে দায়ী করেন। অভিযোগ করে বলেন, পৌরসভা থেকে ড্রেন নির্মাণ করা হলেও সেই ড্রেন দিয়ে পানি নিষ্কাশন হয় না। কারণ মাঝে মধ্যে পয়ঃনিষ্কাশনের ব্যবস্থা গ্রহণের কথা থাকলেও তা করা হয় না। এই সমস্যার স্থায়ী সমাধানে পৌরসভাকে বলার পরও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। অপরদিকে জেলার বিভিন্ন স্থানে রোপা আমন ও উঠতি আউশ ধান ক্ষেত পানিতে ডুবে গেছে। সদ্য রোপণকৃত সবজি আবাদ নিয়েও কৃষকরা রয়েছে আতঙ্কে। নাটোর পৌরসভার মেয়র শেখ এমদাদুল হক আল মামুন জানান, বাড়ির ময়লা আবর্জনা ড্রেনে ফেলার কারণে পানি সময়মত নিষ্কাশনে বাধাগ্রস্ত হয়। ফলে ধীরে পানি নামায় কিছু কিছু এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। কৃষি বিভাগ সূত্র মতে, নাটোর জেলায় ১৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এরমধ্যে সদর উপজেলায় ৩০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। জেলায় গড় বৃষ্টিপাতের রেকর্ড করা হয় ২৭ দশমিক ৬৬ মিলিমিটার। কৃষি সমপ্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক ড. আলহাজ উদ্দিন আহমেদ জানান, এই বৃষ্টিপাতে ফসলের ক্ষতি হওয়ার কোন আশঙ্কা নেই। বরং কৃষকদের রোপা আমন ক্ষেতে সেচ সহায়তা হবে। তবে সদ্য রোপণকৃত সবজি ক্ষেতে কিছুটা প্রভাব পড়তে পারে। জেলার কোথাও ফসলের ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। নওগাঁ প্রতিনিধি : কয়েকদিনের টানা বর্ষণে জেলা সদরসহ জেলার কয়েকটি উপজেলার নিম্নাঞ্চল পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। নদী_নালা, খাল-বিল, পুকুরসহ আমন ধানের কিছু অংশ পানিতে তলিয়ে গেছে। অনেকেই অকাল বন্যার আশঙ্কা করছেন। নওগাঁর ভিতর দিয়ে প্রবাহিত আত্রাই ও ছোট যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেলেও তা বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ধামইরহাট উপজেলা প্রশাসনের ভবন পানিবন্দী হয়ে পড়ায় কর্মকর্তা-কর্মচারী ও জনসাধারণের চলাচল মারাত্মক বিঘি্নত হচ্ছে। উপযুক্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছে প্রশাসনিক ভবন। রংপুর প্রতিনিধি : রংপুরে আশ্বিন মাসের শুরুতেই দিনভর মূষলধারে বৃষ্টিতে নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়েছে পরিবারগুলো। নিম্নআয়ের মানুষ কর্মহীন ছিল। স্কুলগুলোতে উপস্থিতি ছিল কম। সারাদিন বর্ষণে নগরীর বেশকিছু এলাকা ও সড়কে পানি জমেছে। মুষলধারে বৃষ্টিতে নগরীর ড্রেনগুলো ভর্তি হওয়ায় অনেক বাড়িতে নোংরা পানি জমেছে। রংপুর আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, রংপুর ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৮১ দশমিক ৮ মিলিমিটার। গতকাল জামায়াতের হরতালের কারণে পিকেটার দেখা না গেলেও বৃষ্টিই পালন করে দিয়েছে হরতাল। বৃষ্টির কারণে কদর বেড়েছে ছাতা বিক্রেতা ও কারিগরদের। সেখানেও মূল্য কম নয়। হরতালের কারণে যানবাহনের চলাচল কম থাকায় নগরী ছিল অনেকটাই ফাঁকা। নগরীতে নাশকতা এড়াতে টহল দিয়েছে পুলিশ। নগরী ঘুরে দেখা গেছে, নগরীর পায়রাচত্বর, সেন্ট্রাল রোড, পূর্বশালবন, টার্মিনাল, সিগারেট কোম্পানি, গুড়াতি পাড়া, মিস্ত্রিপাড়া, নজিরের হাট এলাকায় সড়কগুলোতে পানি জমেছে। ফলে সাধারণ পথচারীদের ভোগান্তিতে পড়তে হয়। বৃষ্টির কারণে নগরীতে ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে রিকশাচালকরা। অফিস ও স্কুলগামী শিক্ষার্থীসহ কর্মচারীদের বিড়ম্বনার মধ্যে পড়তে হয়। দিনমজুর শ্রেণীর জনগোষ্ঠীর অলস সময় বসে থাকতে দেখা গেছে। বৃষ্টিতে কাঁচাবাজারে প্রভাব পড়েছে। ফলে অনেকটা ক্রেতাশূন্য ছিল নগরীর সিটি ও কামাল কাছনা বাজার। শিবরাম প্রিক্যাডেট স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, মুষলধারে বৃষ্টির কারণে স্কুলে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল কম। সে কারণে তাদের ছুটি দেয়া হয়েছে। সিটি বাজারের কাঁচাসবজি খুচরা ব্যবসায়ী হাজী ময়েন বলেন, বৃষ্টির কারণে সবজি বাইরে যেতে পারেনি। অনেক কাঁচামাল এখনও বাজারে সরবরাহ হয়নি। তাই মূল্যে কিছুটা ছন্দপতন হয়েছে। আকাশ ভালো হলেই মূল্য স্থিতিশীল হবে। এদিকে কর্মজীবী নারী শাকিলা জেসমিন ও হোমায়রা লুবা জানান, অনেক ঝক্কিঝামেলা নিয়ে কর্মস্থলে উপস্থিত হয়েছি। বৃষ্টিতে কারও হাত নেই তবে একে ব্যবহার করে ফায়দা তুলে নেয়া কখনও উচিত নয়। পঞ্চগড় প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ে গত দু\'দিন ধরে অবিরাম বৃষ্টিতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। টানা বৃষ্টির ফলে জেলার বিভিন্ন এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। অনেক এলাকার ধানসহ অন্যান্য ফসলের ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে। জানা যায়, একদিকে হরতাল অন্যদিকে দিনভর বৃষ্টির কারণে শহরসহ আশপাশের এলাকা জনশূন্য হয়ে পড়েছে। হাট-বাজারগুলোতেও লোকজনের চলাচল ছিল কম। স্কুল-কলেজ ও অফিস আদালতেও উপস্থিতি কমে গেছে। শ্রমিকরা কাজে যেতে পারছে না। ফলে অনেককেই বাড়িতে বসে অলস সময় কাটাতে হচ্ছে। জরুরি কাজ ছাড়া কেউই ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। পঞ্চগড় সদর উপজেলার গলেহা এলাকার কৃষক আছিরুল ইসলাম ও পঞ্চগড় ইউনিয়নের হিলিপোর্ট এলাকার কৃষক আয়ুব আলী জানান, বৃষ্টিতে আমন ক্ষেত তলিয়ে গেছে। দ্রুত পানি সরে না গেলে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শহিরউদ্দিন কিছু কিছু এলাকার ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে স্বীকার করে জানান, এই বৃষ্টির ফলে ক্ষেতে পোকামাকড় আক্রমণ করতে পারবে না। তবে বৃষ্টি আরও কয়েকদিন থাকলে আমন ক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। ঈশ্বরদী (পাবনা) : এক রাতের বৃষ্টিতেই ঈশ্বরদীর গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। গত শনিবার দিবাগত রাতের বৃষ্টিতে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। ঈশ্বরদীর সবচেয়ে ব্যস্ততম সড়ক টিপু সুলতান রোডকে পৌর কর্তৃপক্ষ বলছেন \'অতি গুরুত্বপূর্ণ\' রাস্তা। তবে রাস্তাটির বেহাল অবস্থা দেখে ভুক্তভোগীরা প্রশ্ন করেছেন এটা কি সড়ক নাকি মরণ ফাঁদ? এলাকাবাসী জানান, প্রতিদিন এই সড়কে একাধিক দুর্ঘটনা এখন নিয়মে পরিণত হয়েছে। ঈশ্বরদী শহরের রেলগেট থেকে ঈশ্বরদী ইপিজেডে যাতায়াত করার প্রধান এ সড়কের ২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে শত শত গর্ত আর অসংখ্য খানাখন্দে ভরে রাস্তাটি চলাচল করার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে প্রায় ২ বছর ধরে। অথচ গুরুত্বপূর্ণ এ রাস্তাটি সংস্কার করার কোন উদ্যোগ নেয়নি ঈশ্বরদী পৌর কর্তৃপক্ষ। এবারের বর্ষায় রাস্তাটির আরো নতুন নতুন অংশ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শনিবার রাতভর অবিরাম বৃষ্টিতে এ রাস্তার ২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে প্রায় সব অংশই খানাখন্দে পূর্ণ হয়ে গেছে। ঈশ্বরদী ইপিজেডে চলাচলকারী বিভিন্ন যানবাহন বাধ্য হয়ে রেলগেট থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার ঘুরে শহরের পোস্ট অফিস মোড়, স্টেডিয়াম সড়ক ও বাঘইল হয়ে ইপিজেডে যাতায়াত করছে। এ রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাতায়াতকারী ছাত্র সাবিত হাসান মুহিম জানান, প্রতিদিন স্কুলে যাওয়ার সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হতে হয়। প্রায়ই ছাত্রদের সাইকেল ভেঙে যায়। সাঁড়াগোপালপুরের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তাহেরুল ইসলাম জানান, তার মত অনেকেরই শহরে যাতায়াতের জন্য এ রাস্তা ছাড়া অন্য কোন পথ নেই। তাই সাইকেল থাকলেও তাকে বাধ্য হয়ে ২ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে শহরে যেতে হচ্ছে। এলাকাবাসী জানান, প্রতিদিন এ রাস্তায় ছোট খাটে দুর্ঘটনা লেগেই থাকে। রাস্তাটির এই দুরবস্থা সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র মকলেছুর রহমান বাবলু জানান, পৌরসভায় ফান্ড নেই। তাই ইচ্ছা থাকলেও রাস্তাটির কোন সংস্কার করা যাচ্ছে না। তবে খুব শিগগিরই রাস্তাটি সংস্কারের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি। এনায়েতপুর (সিরাজগঞ্জ) : টানা বৃষ্টির কারণে সিরাজগঞ্জের চৌহালী এবং এনায়েতপুরের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। শনিবার রাত এবং গতকাল রোববার সারাদিন বৃষ্টি থাকায় ঘর থেকে মানুষ কর্মস্থলে বের হতে পারছে না। তাই দুর্ভাগে পড়া মানুষগুলো কার্যত বেকার হয়ে পড়েছে। এদিকে টানা বৃষ্টির কারনে তাঁত শিল্প নির্ভর এনায়েতপুর থানার প্রায় ৩০ হাজার হস্ত ও ইঞ্জিন চালিত তাঁতের মধ্যে অন্তত ২০ হাজার তাঁত পুরোপুরী বন্ধ হয়ে গেছে। বৃষ্টির পানির পাশাপাশি রোদের দেখা না পাওয়ায় সুতা শুকানো ও কাপড় বুনাতে পারছে না শ্রমিকেরা। এ অবস্থায় সামনে কোরবানির ঈদের এ সময়ে পুরোদমে তাঁতে শাড়ি-লুঙ্গি উৎপাদনের কথা থাকলেও টানা এই বৃষ্টির কারণে তাঁতীদের ব্যবসায় মন্দাভাব এবং তাঁত শ্রমিকদের বসে বেকার দিন কাটাতে হচ্ছে। আর এ অবস্থা দীর্ঘ স্থায়ী হলে তাঁত সংশ্লিষ্ট এই থানার খুকনী, রুপনাই, গোপালপুর, গোপরেখী, মাধবপুর, গোপীনাথপুর, শিবপুর, এনায়েতপুর, খামারগ্রাম এলাকা গুলোর তাঁত পল্লীর প্রায় অর্ধলাখ মানুষ চরমভাবে দুর্ভোগে পড়বে বলে তাঁতীদের সংগঠন বাংলাদেশ হ্যান্ডলুম পাওয়ারলুম ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন এর সিরাজগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি বদিউজ্জামান বদি এবং খামারগ্রামের তাঁত মালিক তফাজ্জল হোসেন বাবুল, রুপনাই গ্রামের হাজী বাবুল হোসেন এবং গোপালপুরের আবুসামা হোসেন জানিয়েছে। বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) : তিন সপ্তাহ থেকে এক মাসের প্রলম্বিত বন্যার রেশ না কাটতেই সিরাজগঞ্জে বেলকুচি উপজেলায় টানা বৃষ্টিতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে গতকাল রোববার ভোর ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘন্টায় জেলায় ২৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। গতকাল ভোর থেকে চলছে মুষলধারে বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে উপজেলা শহরের বিভিন্ন সড়কে হাঁটু পানি জমা ছাড়াও নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। অবিরাম বৃষ্টির জন্য রাস্তা-ঘাট, হাট-বাজার প্রায় জনশূন্য। তাঁত পল্লীগুলোর সকল তাঁত ফ্যাক্টরি বন্ধ রয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, বৃষ্টির পানি জমে থাকলে বীজতলা ও সবজি চারার ক্ষতি হবার আশঙ্কা রয়েছে। জলমগ্ন চট্টগ্রামে দুর্ভোগ চরমে টানা দুই দিনের বৃষ্টিতে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী। শনিবার থেকে শুরু করে গতকাল রোববার সকাল পর্যন্ত বৃষ্টিতে নগরীর প্রধান সড়কের পাশাপাশি, গলি, উপগলি পানিতে তলিয়ে যায়। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস কর্মকর্তা তরিকুল নেওয়াজ জানান, রোববার ভোর ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত নগরীতে ৫২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। তিনি বলেন, সাগরের লঘু চাপের কারণে দুই দিন ধরে এ বৃষ্টি হচ্ছে। শনিবার সকাল ৯টা থেকে রোববার সকাল ৯টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ৯৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে। এদিকে বৃষ্টিতে নগরীর ষোলশহর, চান্দগাঁও, বহদ্দরহাট, মুরাদপুর, আগ্রাবাদ, হালিশহর, বিবিরহাট, চকবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে হাঁটু থেকে কোমর পর্যন্ত পানি জমে গেছে। বহদ্দারহাট থেকে ষোলশহর পর্যন্ত পানিতে তলিয়ে যাওয়া এলাকায় চলাচল করা রিকশাওয়ালাদের যাত্রীদের কাছে থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করতে দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামে কর্মরত সাংবাদিক সুমন গোস্বামী। সকাল সাড়ে ১০টার পর থেকে বৃষ্টিপাত কমতে থাকায় বিভিন্নস্থানে পানিও কমতে শুরু করে।
আত্রাই-ভবানীগঞ্জ সড়কে ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন
নওগাঁর আত্রাই-ভবানীগঞ্জ সড়কে ঘোষপাড়া নামক স্থানে ব্রিজ ভেঙে আত্রাই-রাজশাহী সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এ ব্রিজ ভেঙে যাওয়ায় হাজার হাজার জনগণ চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। গতকাল রোববার নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের পক্ষ থেকে এলাকায় মাইকিং করে ওই সড়কে কোন প্রকার যানবাহন না চালানোর অনুরোধ করা হয়। জানা যায়, আত্রাই হতে বিভাগীয় শহর রাজশাহীর সাথে সড়ক পথে যোগাযোগের একমাত্র পথ আত্রাই-ভবানীগঞ্জ সড়ক। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শতশত বাস ট্রাক, ভটভটি, সিএনজি, মোটরসাইকেলসহ বিভিন্ন প্রকার যানবাহন চলাচল করে থাকে। ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় যানবাহন চলাচল করতে না পারায় হাজার হাজার মানুষকে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। জানা যায়, আত্রাইয়ে কোন হিমাগার না থাকায় আত্রাইয়ের সকল আলু চাষিরা বাগমারার হিমাগারগুলোতে আলু সংরক্ষণ করেছে। প্রতিদিন ট্রাক বা ভটভটি যোগে এ আলু বাগমারার হিমাগার থেকে উত্তোলন করে আত্রাইসহ বিভিন্ন বাজারে বাজারজাত করা হয়। বর্তমানে ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় পরিবহন সমস্যার কারণে আলুচাষিরা আলু উত্তোলন করতে না পারায় তারা লোকসানের শিকার হচ্ছে। এদিকে রাজশাহীর বাগমারায় কর্মরত আত্রাইয়ের অনেক কর্মজীবী মানুষ পড়েছেন চরম বিপাকে। আত্রাই উপজেলার বিপ্রবোয়ালিয়া গ্রামের রুহুল আমিন বলেন, ব্রিজটি ভেঙে যাওয়ায় আমাদের কর্মস্থল কলেজে যাওয়া কষ্টকর হয়ে পড়েছে। সংশ্লিষ্ট আহসানগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান এসএম মঞ্জুরুল আলম বলেন, ব্রিজটি কয়েকদিন পূর্বেই ভাঙন দেখা দেয়। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগকে জানিয়েছি। তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এ ব্যাপারে নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আব্দুল আলিম খান বলেন, ব্রিজটি পরিদর্শন করেছি। জনদুর্ভোগ লাঘবে অতিদ্রুত সেখানে একটি বেলিব্রিজ প্রতিস্থাপন করা হবে এবং যতদ্রুত সম্ভব সেখানে পূর্ণাঙ্গ ব্রিজ নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করা হবে।
 
 
 
জামায়াতই অাঁতাতের গুজব ছড়াচ্ছে : মুহিত
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
জামায়াতে ইসলামীকে 'বস্নাডি পার্টি' আখ্যায়িত করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত দাবি করেছেন, যুদ্ধাপরাধ মামলার রায় নিয়ে সরকারের সঙ্গে 'আঁতাতের গুজব' ওই দলটিই 'ছড়াচ্ছে'। গতকাল রোববার সচিবালয়ে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। দেশের চলমান রাজনৈতিক... বিস্তারিত
 
২ অক্টোবরের মধ্যে পোশাক শ্রমিকদের বেতন বোনাস
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
পবিত্র ঈদুল আজহা ও পুজার আগে ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে গার্মেন্ট শ্রমিকদের উৎসব ভাতা প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। এ ছাড়া আগামী ২ অক্টোবরের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সকল গার্মেন্ট মালিকদের প্রতি আহবান জানানো... বিস্তারিত
 
পাল্টে গেল বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষা পদ্ধতি
করতোয়া ডেস্ক :
বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার নম্বর ১০০ বাড়িয়ে ২০০ করা হয়েছে, পরীক্ষার সময়ও বেড়েছে এক ঘণ্টা। ১৯৮২ সালের বিধিমালা সংশোধন করে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বয়স, যোগ্যতা ও সরাসরি নিয়োগের জন্য পরীক্ষা) বিধিমালা, ২০১৪' এর গেজেট গতকাল রোববার প্রকাশ করা হয়েছে। প্রিলিমিনারিতে নতুন নিয়ম রেখে
দুই-এক দিনের... বিস্তারিত
 
ভোজ্যতেল নিয়ে 'তেলেসমাতি'
বিডিনিউজ :
আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম পড়লেও দেশের বাজারে এর প্রভাব পড়ছে না। যদিও ভোজ্যতেল আমদানিকারকরা বলছেন, আন্তর্জাতিক বাজারের দাম কমে যাওয়ার পর এখন পর্যন্ত ভোজ্যতেল আর আমদানি করা হয়নি। ফলে দেশের বাজারেও ভোজ্যতেলের দাম কমেনি। অবশ্য ট্যারিফ কমিশনের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন,... বিস্তারিত
 
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নিয়ে শঙ্কা নেই : শাহরিয়ার
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক নিয়ে যে নেতিবাচক কথা বলা হচ্ছিল, যে শঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছিল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সামপ্রতিক ভারত সফরের পর তা কেটে যাবে বলে মনে করছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। গতকাল রোববার দুপুরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও রেনেসাঁ ফাউন্ডেশন আয়োজিত ১ম বাংলাদেশ শান্তি উৎসবে আয়োজিত শান্তি উৎসব শেষে... বিস্তারিত
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: