বগুড়া বুধবার | ৮ শ্রাবণ ১৪২১ | ২৪ রমজান ১৪৩৫ হিজরি | ২৩ জুলাই ২০১৪
ব্রেকিং নিউজ
আর্কাইভ
দিন :
মাস :
সাল :
এই সংখ্যার পাঠক
১৪১৫৯৮
সার্চ
ভেজাল প্যারাসিটামল তৈরির দায়ে তিনজনের ১০ বছর করে কারাদন্ড
যে ওষুধ খেয়ে অর্ধশতাধিক শিশুর মৃত্যু ২১ বছর পর রায়
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
মামলার ২১ বছর পর ভেজাল প্যারাসিটামল তৈরির দায়ে ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাডফ্লেমের মালিক ডা. হেলানা পাশাসহ তিনজনকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদন্ডের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। কারাদন্ডের অতিরিক্ত প্রত্যেক আসামিকে ২ লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ৩ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। আসামিরা হলেন- অ্যাডফ্লেমের মালিক ডা. হেলান?া পাশা,... বিস্তারিত
ছবিতে সাজাপ্রাপ্ত অ্যাডফেম ফার্মাসিউটিক্যালসের পরিচালক ডা. হেলেনা পাশা, কোম্পানির ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমান -করতোয়া
নির্বাচিত সংবাদ
সবার ঘরে ঈদ আনন্দ থাকলেও মুন্নী ও রেহেনার ঈদ আনন্দ নেই
সবার ঘরে ঘরে ঈদ আনন্দ থাকলেও মুন্নী ও রেহেনার ঈদ আনন্দ নেই। রোযা নামায নেই। ধুঁকে ধুঁকে না খেয়ে মৃত্যুর দিকে এগুচ্ছে। দেখভাল করার কেউ নেই। রেহেনার একমাত্র পুত্র টনি পাগলী মাকে ছেড়ে সরে পড়েছে। মুন্নী ও রেহেনার জীবনটাকে রক্ষার জন্য প্রশাসন বা মানবাধিকার কোন সংস্থা এখনও এগিয়ে আসেনি। একজন তরুন আইনজীবি রেহেনা। তার স্বামীর অঢেল জমিজমা, অর্থ সব কিছু থাকার পরেও রেহেনার ভাগ্যে চিকিৎসা জুটছে না। রেহেনা ও তার বোন মুন্নীর শেষ অবস্থান কোথায় যাবে কেউ জানে না। তাদের একমাত্র সম্বল ছিল মা সামসুন নেছা। কিন্তু মাকে হারিয়ে আজ তারা নি:সঙ্গ। দিনাজপুর শহরের পাহাড়পুর মহলার পাহাড়পুর মসজিদের পিছনে মৃত হাফেজ মোহাম্মদ জয়নুলের ২ কন্যা মুন্নী ও রেহেনা। রেহেনা পড়াশুনা করে আইনজীবি হয়েছিল। রেহেনার বিয়ে হয়েছিল বাহাদুর বাজার মহলার আদিল নামে এক যুবকের সাথে। তাদের ঘরে ১টি ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। তার নাম টনি। বয়স প্রায় ১৬ বছরের উধর্ে্ব। অঢেল সম্পত্তি রেখে আদিল মৃত্যুবরন করে। অল্প বয়সে স্বামী হারিয়ে রেহেনা বাহাদুর বাজারের স্বামীর বাড়ি ছেড়ে পাহাড়পুর নিজ পিতৃালয়ে উঠে। কিছু দিনের মধ্যেই রেহেনা ও তার বড় বোন মুন্নী পাগলী হয়ে যায়। পাগলী রেহেনার একমাত্র পুত্র টনী মাকে ছেড়ে অন্য জগতে চলে যায়। মাদক দ্রব্যের অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে এবং ভ্রাম্যমান আদালত তাকে সাজা প্রদান করে। পিতা আদিলের রেখে যাওয়া সোনার জমি পুত্র টনী মা রেহেনার অনুমতি না নিয়েই মায়ের অংশসহ কোটি টাকার সম্পত্তি স্বল্প মূল্যে অনেক জমি বিক্রি করে দেয়। পর্দাশীন মা সামসুন নেছা ২ পাগলীকে নিয়ে সুখের সংসার গড়ে তুলে। ২ পাগলী কন্যার খাওয়া, দাওয়া, কাপড় চোপড় সবই জোগাড় করতো তার মা। ঘরে ২ যুবতী দুই পাগলী মেয়ে তাই কোন পর পুরুষকে বাড়িতে ঢুকতে দিতো না। কিন্তু ভাগ্যোর কী নির্মম পরিহাস। গত ৬ জুলাই পাহাড়পুর জামে মসজিদের ইমাম মোঃ হাসান পাড়াপরশীকে খবর দেয় মসজিদের পিছনের বাড়ির ২ পাগলীর মা মরে পচে আছে। পাড়াপরশী গিয়ে দেখে প্রায় ৫/৬ দিন আগে তার মৃত্যু হয়েছে এবং পচে শরীরে প্রচুর পোকা জমেছে। পাগলী রেহেনার একমাত্র পুত্র টনিকে পাওয়া না যাওয়ায় তাৎক্ষণিক ভাবে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মকবুল হোসেনকে ডেকে আনে পাড়া প্রতিবেশীরা। তিনি নিজেই কোতয়ালী থানাকে বিষয়টি অবগত করলে কোতয়ালী থানার এস.আই মোঃ হারুন লাশের সুরতহাল করে। কিছুক্ষন পর পুত্র টনি আসে। সে তার পাগলী মা খালার দেখভাল করার দায়িত্ব নেয়। কিন্তু নানীর জানাযা ও দাফন হওয়ার পর পরই টনি সরে পড়ে। বর্তমানে ২ পাগলী একাই ওই বাড়িতে রয়েছে। তাদের কোন নিরাপত্তা নেই। প্রতিবেশীরা ২ পাগলীর জীবন রক্ষায় রেহেনা ও মুন্নীকে চিকিৎসার জন্য পাবনা পাগলাগারতে অথবা বাড়িতে চিকিৎসা করার জন্য একমাত্র পুত্র টনিকে বারবার তাগাদা দেয়। কিন্তু চিকিৎসা তো দূরে থাক একবেলা খাওয়ার দেয়নি পুত্র টনি। পাড়াপ্রতিবেশী নাজমা ও নাজ মাঝে মধ্যে খাওয়াদাওয়া দিচ্ছে। এব্যাপারে দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ওসি মোঃ আলতাফ হোসেন জানান, তাদের পাগলাগারদে পাঠাতে অথবা চিকিৎসা সেবা দিতে পুত্র টনির অনুমতি লাগবে। পাবনা গারদে পাঠাতে হলে স্থানীয় এমপির ডিও লেটার লাগবে। হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি ডিও লেটার দিতে প্রস্তুত কিন্তু ডিও লেটার নিবে কে। শহরে স্থানীয় একটি অভিজাত হোটেলে বসবাস করছে টনি। মা সামসুন নেছার মৃত্যুর পর থেকে পাগলী রেহেনা ও পাগলী মুন্নী একাই ওই বাড়িতে রয়েছে। খাওয়া, দাওয়া, কাপড়, চোপড় দেয়ার মতো কেউ নেই। ২ পাগলী ধুকে ধুকে মৃত্যুর দিকে এগুচ্ছে। প্রশাসন বা কোন মানবাধিকার সংস্থা এগিয়ে আসলে পাগলী রেহেনা ও মুন্নী হয়তো স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবে। দুজনের চিকিৎসা হবে এ আশা ও প্রত্যাশা প্রতিবেশীদের। প্রশাসন বা মানবাধিকার সংস্থাই পারে অসহায় ২ পাগলী রেহেনা ও মুন্নীকে আলোর পথ দেখাতে।
রদ্রিগেজ, ফোরলান : অতঃপর রদ্রিগেজ
স্পোর্টস ডেস্ক : ব্রাজিল বিশ্বকাপে ৬ গোল করে গোল্ডেন বুট জিতেছেন হামেস রদ্রিগেজ। রাতারাতি বনে গেছেন বিশ্বতারকাও। যে খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছে গোটা দুনিয়ায়। রিয়াল মাদ্রিদের মতো ক্লাব তাকে পেতে মুখিয়ে রয়েছে। রদ্রিগেজের খেলায় এমন কি যাদু আছে? হ্যাঁ, যাদু না থাকলে কি আর এ সব করা যায়! সে যাদুর বিষয়টি পরিষ্কার করতে বিশ্বকাপই যথেষ্ট। নতুন করে কলম্বিয়ান মিডফিল্ডারকে স্বীকৃতি দিয়েছে ফুটবলের সর্বোচ্চ আসরটি। ফ্লাইং ডাচম্যান রবিন ফন পার্সিকে হটিয়ে রদ্রিগেজের গোলটিই বিশ্বকাপের সেরা গোল হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। উরুগুয়ের বিপক্ষে করা তাঁর সেই ভলির গোলটিই নজর কেড়েছে ফিফাডটকমের পাঠকদের (৪০ লাখেরও বেশি)। তাদের ভোটে টুর্নামেন্টের সেরা গোলের স্বীকৃতি পেয়েছেন কলম্বিয়ার বাইশের তারকা। ২০০৬ সালে বিশ্বকাপের সেরা গোলের স্বীকৃতি পেয়েছিলেন আর্জেন্টিনার ম্যাক্সি রদ্রিগেজ। দ্বিতীয় রাউন্ডে মেক্সিকোর বিপক্ষে চোখ-ধাঁধানো গোলটি করেছিলেন তিনি। ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে এই পুরস্কারটি ওঠে উরুগুয়ের দিয়েগো ফোরলানের হাতে। টুর্নামেন্টের তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে জার্মানির বিপক্ষে গোলটি করেন তিনি। আগের দুই জনই ছিলেন লাতিন আমেরিকার খেলোয়াড়। মজার বিষয় হচ্ছে, ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপেও সেরা গোলটি করেন এক লাতিন আমেরিকান, হামেস রদ্রিগেজ। বিশ্বকাপ কলম্বিয়ান তারকাকে দুহাত ভরে দিয়েছে। এই পাওয়া তাকে সামনে চলার পথ মসৃণ করে দেবে।
ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা অবৈধ সত্ত্বেও নিয়মিত আদায় হচ্ছে টোল-চাঁদা
ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা ক্রমেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। বগুড়ার অটো রিকশার সংখ্যা কত তারও সঠিক হিসাব নেই কোন সংস্থার কাছে। ট্রাফিক পুলিশ , পৌরসভা ও বিআরটিএ\'র কাছে অটো রিকশা অবৈধ যানবাহন হলেও রাস্তায় বিভিন্ন ভাবে অটোরিকশা থেকে টোল ও চাঁদা আদায় হচ্ছে। একটি গাড়ি থেকে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৭০ টাকা চাঁদা ও টোল আদায় হচ্ছে। শেরপুর রোডের অটোরিকশা মালিক সমিতির সভাপতি শহিদুল ইসলাম বাপ্পি ও বগুড়া শহরের উত্তরের (বড়গোলা থেকে মাটিডালি পর্যন্ত) সভাপতি রফিকুল ইসলাম স্বীকার করেন যে, এর মধ্যে মালিক সমিতির ৩০ টাকা, পৌরসভাকে টোল দিতে হয় ৫ টাকা । রাজশাহী বিভাগীয় শ্রমিক ফেডারেশনের নামে ওঠে ৫ টাকা। তবে উত্তরের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, রাজশাহী বিভাগীয় শ্রমিক ফেডারেশনের নামে কোন চাঁদা ওঠে না। এ ছাড়া অন্যান্য সংস্থার জন্য চাঁদা ওঠে, যা কাগজে কলমে নেই। মেসার্স মাশফা এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাদের অটো রিকশার টোল আদায় করে থাকে। পৌরসভার রাস্তায় অটোগুলো চললেও এদের টোলের টাকা যাচ্ছে কথিত ইজারাদারেরা পকেটে। বগুড়া শহরের ৪টি রোডে ৪টি অটোরিকশা মালিক সমিতি আছে। এ অটোরিকশাগুলো পৌরসভার নিয়ন্ত্রণে না থাকলেও মেসার্স মাশফা এন্টারপ্রাইজ পৌরসভার নিকট থেকে ইজারা নিয়ে পৌরসভার নামে প্রতিদিন গাড়ি প্রতি ৫ টাকা করে টোল আদায় করছে। দুই জন পৌর প্যানেল মেয়র পরিমল চন্দ্র দাস ও আমিনুল ফরিদ জানান, আটোরিকশা পুরোপরি অবৈধ। এখান থেকে টোল আদায় করার প্রশ্নই ওঠে না। শুধু প্রতি সিএনজি চালিত থ্রি-হুইলার থেকে ৫ টাকা হারে টোল আদায় করা হচ্ছে। বিআরটিএ\'র সহকারি পরিচালক প্রকৌশলী জিয়াউর রহমান জানান, ব্যাটারি চালিত এই অটোরিকশা পুরো অবৈধ।। সরকারি ভাবে এগুলোর আমাদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অটোগুলোকে বিআরটিএ লাইসেন্স দিতে পারেনা। আবার পৌরসভাও তাদের নামে লাইসেন্স ইস্যু করতে পারে না। এগুলো আমদানি নিষিদ্ধ হলেও খুচরা যন্ত্রাংশ হিসাবে আমদানি করে বগুড়ায় এ গুলোর এ্যাসেম্বল করা হচ্ছে। দেশে বিদ্যুতের একটি বিরাট অংশ ব্যবহার করে অটোরিকশাগুলো। কিন্তু তাদের কাছ থেকে কোন রকমের রাজস্ব পায় না সরকার। যেহেতু এর চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই, কোন ইঞ্জিন ও চেচিস নাম্বার নেই ; তাই এগুলোকে মটরযানের আওতায় আনা সম্ভব হচ্ছে না। যদি ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা অবৈধ হয়, তাহলে এর দুর্ঘটনায় মানুষ মারা যায়, তাহলে তার বিরুদ্ধ কিভাবে মামলা নেয়া হবে? এর উত্তরে বগুড়া সদর থানার ওসি ফয়জুর রহমান জানান, অটো রিক্সার আঘাতে কেউ প্রাণ হারালে সড়ক দুর্ঘটনার মামলা হবে। কিন্তু কোর্টে তাদের বিরুদ্ধে এই মামলায় চালকের সাজা কতটুকু হবে, নাকি আদৌ মামলা টিকবে কি না ;এমন প্রশ্নের উত্তরে বগুড়ার খ্যাতনামা আইনজীবী বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম মন্টু জানান, যেহেতু তার চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই, গাড়ির রেজিষ্ট্রেশন নাম্বার নেই, গাড়ির ইঞ্জিন ও চেচিস নাম্বার নেই তাই সে আইনের ফাঁক গলিয়ে বেরিয়ে যাবে। ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে বলছে তাদের কোন ইঞ্জিন ও চেচিস নাম্বার নেই। তাই এ গুলোর বিরুদ্ধে আইনগত কোন ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না। এ গুলো মোটরযানের আওতায় পড়ে না। ট্রাফিক আইনে কোন ব্যবস্থা নেয়া হলে তাদেরই বিপদে পড়তে হবে।
ঈশ্বরদীতে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে স্বামী হত্যা : স্ত্রী গ্রেফতার
পাবনার ঈশ্বরদীতে দাম্পত্য কলহের জের ধরে শাহানুর রহমান লিপু (৪৫) নামের এক ব্যবসায়ী ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার স্ত্রী। ঘটনার সাতদিন পর গতকাল মঙ্গলবার সকালে বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে নিহত লিপুর গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। হত্যার ঘটনায় জড়িত স্ত্রী শাহীনা আক্তার রোকসানাকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত শাহানুর রহমান লিপু ঈশ্বরদী পৌরসভার শেরশাহ রোড বেলতলা এলাকার মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে। তিনি ঈশ্বরদী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করেছে স্ত্রী রোকসানা। পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এম মোস্তাইন হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ ও নিহতের আত্মীয়-স্বজনেরা জানান, শাহানুর রহমান লিপুর সাথে শাহীনা আক্তারের দীর্ঘ দিন থেকে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কলহ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত ১৫ জুলাই বিকেলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে লিপু তার শিশু কন্যাকে গলাটিপে ধরলে স্ত্রী শাহীনা আক্তার পেছন থেকে হাতুড়ি দিয়ে তার স্বামীর মাথায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। নিজেকে বাঁচাতে নিহত স্বামীর লাশ ঘরের মধ্যে দুই দিন রেখে ১৭ জুলাই রাতে শাহীনা আক্তার বাড়ির সেপটিক ট্যাংকের মধ্যে শিকল দিয়ে লাশের হাত-পা বেঁধে মাথায় বালির বস্তা ভরে ফেলে রাখে। ঘটনার পর থেকে শাহানুর রহমান লিপুর কোনো খোঁজ পাচ্ছিল না তার পরিবারের লোকজন। বিষয়টি সন্দেহজনক হওয়ায় পরিবারের স্বজনরা পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ সোমবার গভীর রাতে স্ত্রী শাহীনা আক্তারকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে স্বামীকে হত্যার কথা স্বীকার করে। তার স্বাীকারোক্তি অনুযায়ী গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাড়ির পাশের সেপটিক ট্যাংকের ভেতর থেকে লিপুর গলিত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিমান কুমার দাস বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
রংপুরে জমে উঠছে নতুন টাকার ব্যবসা
ঈদের ৭ দিন বাকি থাকতেই রংপুরে জমে উঠতে শুরু করেছে নতুন টাকার ব্যবসা। পুরাতন টাকা ব্যবসায়ী ছাড়াও নতুন করে এ ব্যবসায় যোগ হয়েছে অনেকে। ঈদ বখশিশ, যাকাত, ফিতরা দিতে লোকজন তাদের কাছ থেকে কিনে নিচ্ছেন নতুন টাকার নোট। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিরামহীনভাবে চলছে এ ব্যবসা। জানা যায়, বাংলাদেশ ব্যাংক রংপুর শাখার অসাধু কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর সহায়তায় ব্যবসায়ীরা এই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। টাকা ব্যবসায়ীরা জানায়, প্রতিদিন ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা বিক্রি করছে তারা। এতে তাদের আয় হয় ১৫শ\' থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত। ব্যাপক চাহিদা থাকায় ঈদে নতুন টাকা সরবরাহ করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রতিবছরই ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে থাকে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেসরকারি ব্যাংকের কয়েকজন কর্মকর্তা জানান, ব্যাংকগুলোর নতুন নোটের চাহিদা পূরণে বাংলাদেশ ব্যাংক ১২ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বাজারে ছাড়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। এর মধ্যে ২, ৫, ১০, ২০, ১০০, ৫০০ ও এক হাজার টাকার নোট রয়েছে। সরেজমিন দেখা গেছে, নগরীর সিটি বাজারের সামনের ফুটপাতে টাকার পসরা সাজিয়ে বসে আছে টাকা ব্যবসায়ীরা। ক্রেতাদের ভিড়ও চোখে পড়ার মতো। শুধু নতুন টাকা নয়, পুরাতন ও ছেঁড়া টাকার ব্যবসাও করে তারা। অর্থাৎ কমিশন ভিত্তিতে পুরাতন ও ছেঁড়া টাকা বদলে দেয় তারা। বছরের অন্যান্য সময়ে নতুন টাকার ব্যবসা তেমন একটা চলে না বলে জানান এখানকার ব্যবসায়ীরা। বিক্রেতারা জানায়, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির এক টাকার ১০০টি মুদ্রা বিক্রি হচ্ছে ১১০ টাকায়। ৫০০টি দুই টাকার নতুন নোটের দাম এক হাজার ২৫ টাকা। ২শটি ৫ টাকার নোট ও ১শ টি ১০ টাকার নোট ১ হাজার ৫০ টাকা। আর ৫০টি ২০ টাকার নোট কিনতে হচ্ছে ১ হাজার ৮০ থেকে ১ হাজার ১০০ টাকায়। এসব নোটেরই চাহিদাই বেশি। তাছাড়া আছে ১০০, ৫০০ ও ১ হাজার টাকার নতুন নোট। ক্রেতারা জানান, ব্যাংকে গিয়ে টাকা না পাওয়ায় আর ঝামেলা এড়াতে লোকজন এসব ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে নতুন টাকা সংগ্রহ করে থাকে। টাকা ক্রেতা রুবেল জানান, তিনি ব্যাংকে গিয়েছিলেন কিন্তু টাকা পাননি, তাই বাধ্য হয়ে এখান থেকে নতুন টাকা নিচ্ছেন। অভিযোগ রয়েছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক অন্যান্য তফসিলি ব্যাংকে নতুন টাকা সরবরাহ করে। কিন্তু সাধারণ মানুষ নতুন টাকা না পেলেও টাকা ব্যবসায়ীরা যথাসময়ে তা পেয়ে যায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের কতিপয় কমকর্তা-কর্মচারীদের সহায়তায় এক শ্রেণীর দালালচক্র ব্যাংক থেকে নতুন টাকা সংগ্রহ করে বাইরে বেশি দামে বিক্রি করে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশে ব্যাংকের এক কর্মকর্তা জানান, দালালদের অপতৎপরতা ঠেকাতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ কঠোর নজরদারি করছে। এ জন্য এক ব্যক্তি একবারে একই মূল্যমানের ১শ পিসের এক বান্ডিলের বেশি টাকা বিনিময় করতে পারবেন না বলে জানান তিনি।
ভেজাল প্যারাসিটামল তৈরির দায়ে তিনজনের ১০ বছর করে কারাদন্ড
মামলার ২১ বছর পর ভেজাল প্যারাসিটামল তৈরির দায়ে ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাডফ্লেমের মালিক ডা. হেলানা পাশাসহ তিনজনকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদন্ডের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। কারাদন্ডের অতিরিক্ত প্রত্যেক আসামিকে ২ লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ৩ মাস বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। আসামিরা হলেন- অ্যাডফ্লেমের মালিক ডা. হেলান?া পাশা, প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক মিজানুর রহমান ও উৎপাদন ইনচার্জ নৃগেন্দ্র নাথ বালা। ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাডফ্লেমের সঙ্গে অপর দুই আসামি আজফার পাশা ও মো. নোমানের কোনো সম্পৃক্ততা প্রমাণ করতে না পারায় আদালত তাদের খালাস দিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার ড্রাগ আদালতের বিচারক মো. আবদুর রশিদ এ রায় ঘোষণা করেন। ১৯৮২ সালের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৬সি ধারায় তাদের এ দন্ড দেওয়া হয়। ১৯৯৩ সালের ২ জানুয়ারি ঢাকার ড্রাগ আদালতে মামলাটি করেছিলেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের তত্ত্বাবধায়ক আবুল খায়ের চৌধুরী। মামলা দায়েরের ২১ বছর পর এ রায় ঘোষণা করা হলো। রায় ঘোষণার আগে ৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে। দন্ডপ্রাপ্ত আসামির মধ্যে নৃগেন্দ্র নাথ বালা পলাতক রয়েছেন। আসামি হেলানা পাশা ও মিজানুর রহমান জামিনে থেকে আদালতে হাজির ছিলেন। তাদের সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। খালাসপ্রাপ্ত দুই আসামি মামলার শুরু থেকেই পলাতক। রায়ের পর্যালোচনায় বিচারক বলেন, ভেজাল প্যারাসিটামল ওষুধ তৈরি করা সমাজ ও মানবতার বিরুদ্ধে জঘন্য অপরাধ। তাই আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা দেওয়া বাঞ্ছনীয়। এ আইনে সর্বোচ্চ ১০ বছর কারাদ- ও ২ ল?াখ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। মামলার অভিযোগ, আসামিদের সাক্ষ্য ও রায়ের বিবরণ থেকে জানা যায়, ১৯৯০ সাল থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত সময়ে ঢাকা শিশু হাসপাতালে শিশু মৃত্যুর হার অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যায়। আর প্রত্যেক শিশুই কিডনী অকেজো হয়ে মৃত্যুবরণ করে। বিষয়টি সন্দেহ হলে ঢাকা শিশু হাসপাতালের তৎকালীন পরিচালক বিগ্রেডিয়ার (অব) মকবুল হোসেন ১৯৯১ সালের ৩ জুলাই ওষুধ প্রশাসনকে মৌখিকভাবে বিষয়টি অবগত করেন। বিষয়টি নিয়ে সেসময় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ভেজাল প্যারাসিটামল সেবনে হাজার হাজার শিশুর মৃত্যুর খবর প্রকাশ করে। পরবর্তীতে ১৯৯২ সালের ২৫ নভেম্বর ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের পরিদর্শক আবুল খায়ের চৌধুরী ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান অ্যাডফ্লেম ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানি থেকে তাদের উৎপাদিত ফ্লামোডল নামক প্যারাসিটামল সিরাপ নমুনা হিসাবে সংগ্রহ করে ড্রাগ টেস্টিং ল্যাবরেটরি ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় (ডাবি্লউএইচও) পরীক্ষার জন্য পাঠায়। নমুনা পরীক্ষা করে ড্রাগ টেস্টিং ল্যাবরেটরি অভিমত দেয় যে, প্যারাসিটামল তৈরিতে ব্যবহৃত প্রোপাইলিন গ্লাইকলের পরিবর্তে চামড়া শিল্পে ব্যবহৃত ডাই ইথিলিন গ্লাইকল ব্যবহার করা হয়েছে। ডাই ইথিলিন গ্লাইকলই শিশুর কিডনী অকেজো হওয়ার জন্য দায়ী। ড্রাগ আদালতের বিশেষ পিপি শাহিন আহমেদ খান বলেন, কোম্পানিটির আরেক অংশীদার ডা. আনোয়ার পাশা, জাহিদ ইফতেখার পাশা ও ইসরাত পাশাকে এ মামলার আসামি করা হলেও তারা মারা যাওয়ায় আগেই তাদের মামলা কার্যক্রম থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। মামলায় চারজন সাক্ষীর একজন ঢাকা শিশু হাসপাতালের কিডনী বিভাগের তৎকালীন প্রফেসর মো. হানিফ এ মামলায় সাক্ষ্য প্রদানের সময় কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন।
সাফল্য দেখতে বাংলাদেশ সফরের আগ্রহ ক্যামেরনের
অর্থনীতি, সামাজিক ও নারী উন্নয়নে বাংলাদেশের অগ্রগতির \'ভূয়সী প্রশংসা\' করে শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। এই সাফল্য কীভাবে এলো- তা দেখতে বাংলাদেশ সফরেরও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। গতকাল মঙ্গলবার লন্ডনের ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে নিজের কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে তিনি এই আগ্রহের কথা জানান। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব একেএম শামীম চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, "অব্যাহত অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং নারীর স্বাধীনতা ও অধিকার সুরক্ষায় বাংলাদেশ যে অগ্রগতি অর্জন করেছে তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ডেভিড ক্যমেরন। "তিনি বলেছেন, যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশ অনেক দিনের বন্ধু। যুক্তরাজ্য বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে যে সহযোগিতা করে যাচ্ছে তা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।" ডেভিড ক্যামেরনের আমন্ত্রণে \'গার্ল সামিটে\' যোগ দিতে তিন দিনের সফরে সোমবার লন্ডনে পৌঁছান শেখ হাসিনা। টানা দ্বিতীয় মেয়াদে বাংলাদেশ সরকারের দায়িত্ব নেয়ার পর যুক্তরাজ্যে এটাই তার প্রথম সফর। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের আগ্রহের কথা জানিয়ে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বলেন, "উনি বলেছেন যে, নারীর উন্নয়ন, অব্যাহত ৬ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি- এটা তোমরা কীভাবে করলে তা আমি সরেজমিনে দেখতে চাই। "আমি এটাও দেখতে চাই যে, তোমরা মৌলবাদী শক্তির চ্যালেঞ্জকে কীভাবে মোকাবিলা করছ। এজন্যও উনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। এটা খুব ডিফিকাল্ট চ্যালেঞ্জ, উনি যেটা করে যাচ্ছেন এতদিন ধরে। ক্যামেরন সিলেটে যাওয়ারও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন জানিয়ে বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উনাকে বলেছেন, বাংলাদেশের জনগণ ও সরকার অত্যন্ত আন্তরিকভাবে তাকে স্বাগত জানাবে। সোমবার দুপুরে গার্ল সামিটে যোগ দেয়ার আগে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে আধাঘণ্টারও বেশি সময় বৈঠক করেন দুই প্রধানমন্ত্রী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন। শহীদুল হক বলেন, বৈঠক \'খুবই সৌহার্দ্যপূর্ণ ও আন্তরিক\' পরিবেশে হয়েছে। এতে শেখ হাসিনার সরকারের প্রতি ক্যামেরন সরকারের \'আস্থার প্রকাশ\' ঘটেছে। "তিনি শুধু প্রশংসা করেছেন তাই না, সরকারের প্রতি গভীর আস্থা প্রকাশ করেছেন এবং শেখ হাসিনার সরকারের সাথে একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন।" দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর দুই প্রধানমন্ত্রী গার্ল সামিটে যোগ দেন। লন্ডনের ওয়ালওয়র্থ একাডেমিতে গার্ল সামিটের ভেন্যুতে ব্রিটেনের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ডেসমন্ড সোয়ানে এবং ইউনিসেফের নির্বাহী পরিচালক অ্যান্থনি লেক প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।
বস্ন্যাক বক্স ও মৃতদেহ ফেরত দিল বিদ্রোহীরা
ইউক্রেইনের পূর্বাঞ্চলে বিধ্বস্ত মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের বিধ্বস্ত এমএইচ১৭ ফ্লাইটের \'ব্ল্যাক বক্স\' এবং যাত্রীদের মৃতদেহ হস্তান্তর করেছে ইউক্রেইনের পূর্বাঞ্চলের রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। পূর্ব ইউক্রেইনের রুশপন্থি বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত দোনেস্কে এক আলোচনা শেষে মালয়েশীয় প্রতিনিধিদলের কাছে ব্ল্যাক বক্স হস্তান্তর করা হয়। ঘটনাস্থলে প্রবেশে সোমবার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ভোটাভুটির কয়েকঘণ্টার মধ্যেই এ হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। ওদিকে, ট্রেনে তোলা ব্যাগ ভর্তি ২শ\' লাশ বিদ্রোহী-নিয়ন্ত্রিত শহরের বাইরে ইউক্রেইন সরকার-নিয়ন্ত্রিত খারকিভ শহরে পৌঁছেছে।লাশগুলো সনাক্ত করার জন্য নেদারল্যান্ডসে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী উদ্ধার করা মৃতদেহগুলো নেদারল্যান্ডস কর্তৃপক্ষের কাছে ফিরিয়ে দেয়া নিয়ে রুশপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছানোর পর ট্রেনে করে লাশ খারকিভে পৌঁছে দেয় তারা। গত ১৭ জুলাই দোনেস্কে এমএইচ১৭ ফ্লাইট বিধ্বস্ত হয়ে ২৯৮ আরোহীর সবাই নিহত হয়। আর এ ঘটনার জন্য রুশপন্থি বিদ্রোহীদের দায়ী করে ইউক্রেইন সরকার। ইউক্রেইনের অভিযোগ, বিদ্রোহীদের ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও একই কথা বলেন। এ অভিযোগের মুখে লাশগুলো হস্তান্তর করার জন্য আন্তর্জাতিক চাপের মুখে ছিল বিদ্রোহীরা। লাশগুলো মঙ্গলবারই নেদারল্যান্ডসে পৌঁছে দিতে সাধ্যমত চেষ্টা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ইউক্রেইন সরকার। ওদিকে, হস্তান্তর করা ওই ব্ল্যাক বক্সে সংগৃহীত তথ্য থেকে জানা যাবে কখন, কোথায় এবং কেন বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছিল। মালয়েশীয় প্রতিনিধি দলের প্রধানও সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ব্ল্যাক বক্সটি \'অক্ষত\' অবস্থায় তাদের হাতে এসেছে। ক্রিমিয়া প্রদেশ ইউক্রেইন থেকে আলাদা হয়ে রুশ ফেডারেশনে যোগ দেয়ার পর থেকে কিয়েভের সঙ্গে মস্কোর উত্তেজনা চলছে। ইউক্রেইন বলছে, তার দেশের পূর্বাঞ্চলে বিদ্রোহীদের অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করছে রুশ সরকার।
 
 
 
বাহারি পোশাকে জমজমাট রাজধানীর ঈদ মার্কেট
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
শিশুদের নতুন পোশাক নিয়ে মাতামাতি জানান দেয়, ঈদ আসছে। ঈদে ছোটরা নতুন জামা-জুতোর বায়না না ধরলে ঈদকে যেন ঈদই মনে হয় না। উচ্চবিত্ত আর নিন্মবিত্ত-মধ্যবিত্ত শ্রেণীর শিশুদের বায়না এক নয়। ধনী পরিবারের শিশুদের বায়না ফ্যাশন হাউজে আর গরিব পরিবারের শিশুদের সর্বোচ্চ ফুটপাত। প্রতি বছর ঈদকে... বিস্তারিত
 
নারায়ণগঞ্জে ৭ খুন
২ র‌্যাব সদস্যের জবানবন্দি
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি :
নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের মামলায় র‌্যাব-১১ এর দুই সদস্য আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন জানান, মঙ্গলবার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মনোয়ারা বেগম ফৌজদারি কার্যুবিধির ১৬৪ ধারায় এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন। দুই র‌্যাব সদস্য হলেন আব্দুস সালাম ও আব্দুস সামাদ। সাখাওয়াত হোসেন জানান,... বিস্তারিত
 
অপহরণের ১২ দিন পর স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দি লাশ
স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস :
অপহরণের ১২ দিন পর রাজধানীর ডেমরার বাঁশেরপুল এলাকার একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে হাসান (১৩) নামের এক স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দি লাশ পাওয়া গেছে। মৃতদেহের হাত-পা বাধা ছিলো। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে স্যার সলিমুলাহ মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠিয়েছে। এদিকে স্কুলপড়ুয়া ছেলেকে হারিয়ে বাবা-মা পাগলপ্রায়। হাসান ডেমরার... বিস্তারিত
 
বস্ন্যাক বক্স ও মৃতদেহ ফেরত দিল বিদ্রোহীরা
যুদ্ধবিরতিতে কূটনৈতিক উদ্যোগ
হাসপাতালে ইসরায়েলি হামলা গাজায় নিহতের সংখ্যা ৬০৭
 
 
ভিডিও
রাশিচক্র আজ ঢাকায় আজ বগুড়ায়
 
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের চরমপন্থিরা আত্মসমর্পণের আহ্বানে সাড়া দেবে বলে মনে করেন কি?
হ্যাঁ
উত্তর নেই
না
 
 
 
আজকের ভিউ
নামাজের সময়সূচী
ওয়াক্ত
সময়
ফজর
03:50
জোহর
12:7
আছর
04:42
মাগরিব
06:54
এশা
08:20
 
 

সম্পাদকঃ মোজাম্মেল হক, সম্পাদক কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, শিল্পনগরী বিসিক বগুড়া এবং ১৬৭ ইনার সার্কুলার রোড, (আরামবাগ) ইডেন কমপ্লেক্স, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত ও চকযাদু রোড, বগুড়া হতে প্রকাশিত।
ফোন ৬৩৬৬০,৬৫০৮০, সার্কুলেশন বিভাগঃ ০১৭১৩২২৮৪৬৬, বিজ্ঞাপন বিভাগঃ ৬৩৩৯০, ফ্যাক্সঃ ৬০৪২২। ঢাকা অফিসঃ স্বজন টাওয়ার, ৪ সেগুন বাগিচা। ফোনঃ ৭১৬১৪০৬, ৯৫৬০৬৬৯, ৯৫৬৮৮৪৬, ফ্যাক্সঃ ৯৫৬৮৫২২ E-mail : dkaratoa@yahoo.com . . . .

Powered By: